‘হাথরাসের ধর্ষি’তার পরিবার শাস্তি পাবেই’, বেফাঁস মন্তব্য করে এবার ক্ষমা চাইলেন লকেট চট্টোপাধ্যায়

“হাথরাসের নির্যাতিতা তরুণীর পরিবার শাস্তি পাবেই, উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের উপর সম্পূর্ণ ভরসা রয়েছে”, হাথরাসের গণধর্ষণ কাণ্ডে প্রতিবাদ করতে গিয়ে সম্প্রতি ভুলবশত এরকমই বেফাঁস মন্তব্য করে বসলেন বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়। বিজেপি সাংসদের এহেন বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে নেটিজেন এর তরফ থেকে প্রবল কটাক্ষের সম্মুখীন হতে হয় তাকে। অবশেষে নিজের ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চাইলেন তিনি।

উল্লেখ্য, হাথরাসের গণধর্ষণ কাণ্ড নিয়ে প্রথম থেকেই দোষীদের কড়া শাস্তির দাবি জানিয়ে এসেছেন লকেট চট্টোপাধ্যায়। এমনকি ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের প্রকাশ্য রাস্তায় এনকাউন্টার করে মারার নিদানও দিয়েছিলেন তিনি। উত্তর প্রদেশের ঘটে যাওয়া বর্বরোচিত ঘটনার বিরুদ্ধে আবারো প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে ভুলবশত নির্যাতিতার পরিবারের বিরুদ্ধেই শাস্তি চেয়ে বসলেন তিনি। তবে বিরোধীদের প্রবল বিক্ষোভের জেরে নিজের ভুল স্বীকার করে নিয়েছেন তিনি।

নিজের অনিচ্ছাকৃত বেফাঁস মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চেয়ে নিলেন হুগলির বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়। পাশাপাশি, তিনি আশ্বাস দিলেন, নির্যাতিতার পরিবার নিশ্চয়ই সুবিচার পাবেন। উল্লেখ্য, শনিবার কাটোয়া থানার দাঁইহাটের মাকালতোড়ে আয়োজিত এক দলীয় কর্মসূচিতে যোগদান করেন বিজেপি সাংসদ।সেখানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দিতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করে তিনি বলেছেন, উত্তর প্রদেশ নিয়ে নাটকের রাজনীতি করছে তৃণমূল সরকার।

লকেট চট্টোপাধ্যায়ের দাবি, লকডাউনের মধ্যেও রাজ্যে এক মহিলাকে গণধর্ষণ করে পুড়িয়ে মারা হয়। সে ক্ষেত্রে মুখ্যমন্ত্রীর তরফ থেকে কোনো প্রতিক্রিয়া আসেনি। এখনো পর্যন্ত ওই ঘটনার সঙ্গে জড়িত একজন অভিযুক্তও শাস্তি পায়নি। অথচ মুখ্যমন্ত্রী নিরব। এদিকে উত্তরপ্রদেশের গণধর্ষণকাণ্ডে বিজেপির বিরোধিতা করতে সারা রাজ্য জুড়ে মিছিল করে বেড়াচ্ছেন। তিনি আরো বলেছেন, নিজের রাজ্যে কেউ ধর্ষিতা হলে ধর্ষকের বিরুদ্ধে সরব না হয়ে বরং ধর্ষিতার দোষ খুঁজে বের করতে তৎপর হয়ে পড়েন মুখ্যমন্ত্রী।