ভাগ্য ফেরাতে ছাড়ুন রত্ন, কিছু ঘরোয়া উপাদানই আপনার জীবনে নিয়ে আসবে সৌভাগ্য

সমস্ত মানুষ চায় তাদের জীবন যেন সুখের হয়। জীবনে যেন না আসে কোনো বাধা-বিপত্তি। তাই বিশ্বাসের ওপর ভর দিয়ে মানুষ জ্যোতিষ শাস্ত্রে কে ভরসা করে। মহাকাশের বিভিন্ন গ্রহ নক্ষত্রের অবস্থান অনুযায়ী পাল্টাতে পারে মানুষের ভাগ্য। জ্যোতিষ শাস্ত্রের মতে যদি সঠিক নিয়মে সঠিক গ্রহ-নক্ষত্র অনুযায়ী রত্ন ধারণ করা যায়, তাহলে ফেরানো যাবে আপনার ভাগ্য। কিন্তু এই রতনের বদলে যে মূল্য দিতে হয়, তা দেয়া সম্ভব হয় না অনেকের পক্ষেই।তাই জীবনের জটিল থেকে জটিলতর সমস্যা কাটাতে এই রত্ন ধারণ ছাড়াও কিছু ঘরোয়া নিয়ম আছে, তা যদি সঠিক সময়ে করা যায় তাহলে কেটে যেতে পারে গ্রহের দোষ।

জ্যোতিষ শাস্ত্র মতে,যে কোন গ্রহের সঙ্গে সম্পর্কিত যে কোন দোষ কাটানো যায় কোন কিছু দান করার মাধ্যমে।প্রাচীনকাল থেকে আমরা জেনে এসেছি কাউকে কোন কিছু দান করার মাধ্যম দিয়ে পূর্ণ লাভ করা যায়। তাই যেকোন জটিল সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে দান করার পথ বেছে নিতে বলছে জ্যোতিষশাস্ত্র।গ্রহ দোষ কাটানোর জন্য যদি কয়েকটি শস্যদানা পাখিদের খাওয়ানো যেতে পারে তাহলে কেটে যেতে পারে সমস্ত বাধা বিপত্তি। পাখিদের শস্যদানা খাওয়ালে শান্ত হয় যে কোনো গ্রহ।

গ্রহের যে কোন দোষ কাটানোর জন্য সঠিক দিনে সঠিক জিনিস দান করার পদ্ধতিটি আগে জানা দরকার। শনির দোষ কাটাতে বিউলির ডাল এবং কালো তিল পাখিদের খাওয়ানো যেতে পারে। রাহুর দোষ থেকে মুক্তি পাবার জন্য আকৃতির বাজরার দানা খাওয়ানো যায়। বৃহস্পতি গ্রহের দোষ কাটাতে পাখিদের খাওয়াতে হবে ছোলার ডাল। বুধ গ্রহের প্রভাব কেটে যায়, পাখিদের গোটা মুগ বা তরকার ডাল খাওয়ালে। চক্র বাশুক্রের দশা কাটানোর জন্য পাখিদের চাল খাওয়ানো উচিত। সূর্য এবং মঙ্গলের অশুভ প্রভাব কেটে যায় পাখিদের গম খাওয়ালে। যদি সঠিক সময় আপনি এই সঠিক নিয়ম গুলি পালন করতে পারেন তাহলে কোন রত্ন ছাড়াই কেটে যাবে আপনার সমস্ত গ্রহের দোষ।