পুলিশকে নিয়ে কুমন্তব্য, ফের বিতর্কে দিলীপ ঘোষ

বাংলার পুলিশ প্রশাসনের বিরুদ্ধে সদাই সরব দিলীপ ঘোষ। রাজ্য পুলিশের বিরুদ্ধে আবারও আক্রমণ শানালেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। এর আগেও বহুবার রাজ্য পুলিশের বিরুদ্ধে কদর্য ভাষায় মন্তব্য করতে শোনা গেছে তাকে। রবিবার, কেন্দ্রের প্রণীত নতুন কৃষি আইনের স্বপক্ষে প্রচার চালানোর জন্য খড়গপুরে একটি মিছিলে অংশগ্রহণ করেছিলেন দিলীপ ঘোষ। সেখানে পুলিশের বিরুদ্ধে আবারও খারাপ মন্তব্য করার অভিযোগ উঠল বিজেপির রাজ্য সভাপতি বিরুদ্ধে।

এ দিনের মিছিলে অংশগ্রহণ করে দিলীপ ঘোষ বিজেপি কর্মী সমর্থকদের দল ছাড়ার নেপথ্যে পুলিশকে দায়ী করে বসেন। রাজ্য পুলিশের বিরুদ্ধে তার অভিযোগ, পুলিশের চাপের মুখে পড়ে দল ছাড়তে বাধ্য হচ্ছেন বিজেপির কর্মী-সমর্থকেরা। তিনি আরো বলেন, পুলিশের ভয় দেখিয়ে বিজেপি সমর্থকদের জোর করে তৃণমূলে যোগদান করানোর প্রচেষ্টা চালাচ্ছে রাজ্য শাসকদল।

তিনি আরো বলেছেন, তৃণমূলের ভাড়া করা গুন্ডা দলের চুনোপুঁটিদের ভয় দেখিয়ে ভাঙিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। এর ফলে বিজেপির কর্মকর্তাদের মধ্যে রীতিমতো ক্ষোভের সঞ্চার হচ্ছে। এর পরেই রাজ্য পুলিশের প্রতি বিস্ফোরক মন্তব্য দিলীপ ঘোষের, “বাংলার শাসকদলের ওই গুন্ডাবাহিনী, ওই পুলিশের মুখে প্রস্রাব করে দেয় বিজেপি কর্মীরা”। বলাবাহুল্য, বিজেপি রাজ্য সভাপতি এমন বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে রাজনৈতিক মহলে তার বিরুদ্ধে জোর গুঞ্জন শুরু হয়েছে।

দিলীপ ঘোষের এই কু-মন্তব্যের পাল্টা দিয়েছে তৃণমূল। পশ্চিম মেদিনীপুরের তৃণমূল সভাপতি বলেছেন, এই ধরনের মন্তব্য করার কথা ভাবতেও পারে না তৃণমূল। দিলীপ ঘোষকে কটাক্ষ করে তার মন্তব্য, আসন্ন একুশের বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল দেখলে দিলীপ ঘোষের মলমূত্র ত্যাগ করা বন্ধ হয়ে যাবে। উল্লেখ্য, রাজ্য পুলিশের বিরুদ্ধে যে হারে বিতর্কিত মন্তব্য পেশ করেন দিলীপ ঘোষ, তাতে তা নিয়ে কম জল ঘোলা হয়নি রাজনৈতিক মহলে। তবুও দমবার পাত্র নন দিলীপ ঘোষ। যে কোনো ইস্যু নিয়েই রাজ্য সরকারের পাশাপাশি রাজ্য পুলিশও তার কটাক্ষের শিকার হয়।