শুধু একটি মন্তব্যেই খতম ক্রুষ্ণা ও গোবিন্দের সম্পর্ক, মুখ দেখাদেখি বন্ধ মামা-ভাগ্নের

বলিউড তারকাদের মধ্যে অন্যতম হলেন গোবিন্দা। একের পর এক দুর্দান্ত সিনেমাতে অভিনয় করে তিনি নিজের জায়গা শক্ত করে রেখেছিলেন। এই সুপারস্টার গোবিন্দার একমাত্র ভাগনে হলো কৃষ্ণা অভিষেক। ছোটবেলা থেকেই মামার কাছে বড় হয়েছিলেন অভিষেক। মামার হাত ধরেই তার ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে আসা। কিন্তু সামান্য একটি কারণে ভেঙে যায় তাদের সম্পর্ক। ভাগ্নের দিক থেকে বহুবার চেষ্টা করা হলেও মামার দিক থেকে কোন ভাবেই বরফ গলার যায়নি।

কপিল শর্মা শো এর জনপ্রিয় মুখ ক্রুষ্ণা অভিষেক।চারবছর আগে এই জনপ্রিয় মাধ্যম থেকে জানা গিয়েছিল যে মামা ভাগ্নের মধ্যে একটি ঠান্ডা যুদ্ধ চলছে। দুজনের মধ্যে এখন মুখ দেখাদেখিও প্রায় বন্ধ। ঘটনার সূত্রপাত হয়েছিল ক্রুষ্ণা অভিষেকের শো দা ড্রামা কোম্পানিতে। এই শো এর প্রযোজকদের খুব ঘনিষ্ঠ ছিলেন গোবিন্দা এবং তার স্ত্রী সুনিতা।

এই শো এর প্রযোজকদের অনুরোধে অতিথি হয়ে আসতে রাজি হয়েছিলেন গোবিন্দা এবং তার স্ত্রী। সেই সময় ক্রুষ্ণা অভিষেকের শ্রী কাশ্মীরা শাহ সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট করে বলেছিলেন,”টাকা নিয়ে মঞ্চে নাচার লোকজন”। মনে করা হয় যে, এই মন্তব্য করা হয়েছিল গোবিন্দা এবং তার স্ত্রী সুনিতা র উদ্দেশ্যে।

হিন্দি টেলিভিশনের খুবই পরিচিত মুখ কাশ্মীরা। বেশকিছু হিন্দি সিনেমাতে তিনি অভিনয় করেছিলেন।তার পোস্ট করা এই মন্তব্যের পর মামা ভাগ্নে সম্পর্কে চিরকালের জন্য চিড় ধরে যায়। গোবিন্দ নিশ্চিত ছিলেন যে এই পোস্ট করা হয়েছিল তাদের উদ্দেশ্য করে। এই কথার পর তারা এতটাই আঘাত পান যে, ভাগ্নের সঙ্গে আর কোন সম্পর্ক রাখতে চাননি তারা।

যদিও সমস্ত কথা জানার পর ভাগ্নি বারবার মামার কাছে গিয়ে ক্ষমা চান। সমস্ত ভুল বোঝাবুঝির একটি ইতি করতে চান। তিনি এও বলেন যে, কার স্ত্রী কাশ্মীরা এই পোস্টটি গোবিন্দ কে নিয়ে নয়, তার বোনের উদ্দেশ্যে করেছিলেন। পরে অবশ্য ক্রুষ্ণা দাবি করেছিলেন যে,”তাদের মধ্যে সবকিছু আবার আগের মত ঠিক হয়ে গেছে”। কিন্তু আদৌ এটি সত্যি কথা নয়। সম্পর্ক আগের মত কখনোই হয়নি।

এ কথা জানা যায় বছর দুই আগে কপিল শর্মার শো এর মারফতে। সেখানে অতিথি হয়ে এসেছিলেন গোবিন্দ এবং তার স্ত্রী। কিন্তু আশ্চর্যজনক ভাবে সেই দিন অনুপস্থিত ছিলেন তার ভাগ্নে। পরিচালকের নাকি করার নির্দেশ ছিল, গোবিন্দ এবং তার স্ত্রী সুনিতা যখন আসবেন, তখন যেন শুটিং ফ্লোরে দেখতে না পাওয়া যায় ক্রুষ্ণাকে। এমনকি ক্রুষ্ণা ও কাশ্মীরের যখন যমজ সন্তানের জন্মদিনের পার্টি হয়েছিল, তখন গোবিন্দার পরিবারের কেউ সেখানে হাজির ছিলেন না। পরে সুনিতা জানিয়েছিলেন, তাদেরকে পার্টিতে নিমন্ত্রণ করা হয়নি। যদিও আমন্ত্রণ জানালেও তারা যেতেন না।