“কা’না ছেলের না’ম পদমলোচন”, টিএমসি-র “সর্বভারতীয়” ত’ক’মাকে ক’টা’ক্ষ তথাগতের

মুকুল রায় বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে ফিরতেই রাজনীতিতে নতুন তরজা শুরু হয়েছে। মুকুল রায়ের পক্ষে-বিপক্ষে উঠছে বহুমত। স্বভাবতই রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশের দাবি, নিজের স্বার্থ চরিতার্থ করার উদ্দেশ্যেই মুকুল রায় তৃণমূল দলে ফিরে এসেছেন। আবার অনেকে দাবি তুলছেন এতে বিজেপি জোর ধাক্কা খেলো। তবে বিজেপি অবশ্য সেসব মানতে নারাজ। তাদের দাবি, মুকুল রায় দলত্যাগ করাতে বরং দলের ভালো হয়েছে।

এ সম্পর্কে বাকবিতণ্ডা চলছে গতকাল থেকেই। এবার বিজেপি নেতা তথাগত রায় মুকুল রায় প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে কার্যত তৃণমূলের সর্বভারতীয় তকমাকেও কটাক্ষ করে বসলেন। সম্প্রতি তথাগত রায় সংবাদমাধ্যমের সামনে বলেছিলেন যে, মুকুল রায়ের কোনো মতাদর্শ নেই। তার এই বক্তব্য থেকে রাজনৈতিক শিবিরের একাংশ প্রশ্ন তুলেছিলেন যে, তাহলে কি বিজেপি এতদিন মতাদর্শহীন একজন মানুষকে গত সাড়ে তিন বছর দলের সর্বভারতীয় সহ সভাপতি করে রেখেছিল?

জনৈক নেটিজেনের এই প্রশ্নের পরিপ্রেক্ষিতে তথাগত রায়ের বক্তব্য, এইসব শিশুসুলভ কথার মারপ্যাঁচ ছাড়ুন। মুকুল রায় বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি হয়েছিলেন বলেই তিনি কি সর্বভারতীয় নেতা হতে পেরেছিলেন? এটি আসলে কানা ছেলের নাম পদ্মলোচনের মতো ব্যাপার। তার পরেই তার সংযোজন, “যেমন সর্বভারতীয় তৃণমূল”!

প্রসঙ্গত, নির্বাচন কমিশন তৃণমূলকে সর্বভারতীয় তকমা দিলেও পশ্চিমবঙ্গের বাইরে অবশ্য দেশের অন্য কোন প্রান্তে তৃণমূলের তেমন কোনো সংগঠন নেই। যেহেতু কয়েক বছর আগে দু-একটি রাজ্যে এক-দুটি বিধানসভা কেন্দ্রে জয়লাভ করেছিল তৃণমূল, সেই থেকে তৃণমূল সর্বভারতীয় দলের মর্যাদা পেয়েছে। সেই সম্পর্কেই কার্যত তৃণমূলকে কটাক্ষ করলেন তথাগত রায়।