সীমান্তে সেতু উদ্বোধন করতেই, ক্ষেপে লাল চিন! বেআইনি পরিকাঠামো বৃদ্ধির অভিযোগ

ভারত ইতিমধ্যেই পাকিস্তান ও চিন সীমান্তে ৪৪ টি সেতু উদ্বোধন করেছে, যার ফলে চিন অনেকটাই চাপের মধ্যে। এবার সেই কারণেই চিন নারাজ। তারা জানিয়েছে ভারতের এই লাদাখ ইউনিয়ন টেরিটরি দখল কিছুতেই মেনে নেওয়া হবে না। গত কয়েকদিন আগেই রাজনাথ সিং ভার্চুয়াল উদ্বোধন করেছিল এই ৪৪ টি সেতুর, এই সেতু গুলো আসলে অরুণাচল প্রদেশ লাদাখ সীমান্ত, জম্মু কাশ্মীর সীমান্ত দিয়ে তৈরী করা হয়েছে । প্রতিরক্ষা মন্ত্রী জানিয়েছেন সেনাদের কনভয়ের জন্য ও সাধারণ মানুষের চলাফেরার জন্য এই সব সেতু নির্মাণ করা হয়েছে। কিন্তু এই নিয়েই ক্ষুব্ধ চিন। কারণ ভারত নাকি সীমান্তে বেআইনি ভাবে তৈরী করেছে এইসব সেতু।

এই নিয়ে চিনের বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান জানিয়েছেন, ভারত লাদাখ সীমান্তে দিনের পর দিন পরিকাঠামো বাড়িয়েই চলেছে। আর এই কাজ যে দুই দেশের জন্যই ক্ষতিকারক। কোনোভাবেই এটা মেনে নেওয়া হবে না। এমন যদি করা হয় তাহলে দুই দেশের সমস্যা কখনই মিটবে না। আসলে লাদাখ ও অরুণাচল প্রদেশের মধ্যে ৮ টি সেতু তৈরী করেছে ভারত, যার ফলেই ক্ষুব্ধ চিন।

তিনি আরো বলেন, লাদাখ ইউনিয়ন টেরিটরিতে ভারত বেআইনি ভাবে পরিকাঠামো বৃদ্ধি করছে যেটা কখনোই মান্যতা দেয় না চিন। এই ঘটনার কারণেই দুই দেশের মধ্যে পরিস্হিতি আরও জটিল হতে পারে বলে জানিয়েছে তিনি। তাই এইসব থেকে বিরত থাকার কথা বলেছেন তিনি। ভারতীয় সেনার সুবিধার জন্যই তারা পরিকাঠামো বৃদ্ধি করছে, এতে সুবিধা না বরং ক্ষতি হবে দুই দেশের মধ্যে। এইসব কাজের জন্য সীমান্তে দিনের পর দিন উত্তেজনার বৃদ্ধি ঘটতেই থাকবে। যা কোনো দেশের জন্য ভালো কাজ হবে না । তাই আবেদন জানাচ্ছি ভারত যেনো এইসব কাজের থেকে বিরত থাকে।