দেশের গোপন তথ্য চিনে পাচারের অভিযোগ, দিল্লিতে গ্রেফতার সাংবাদিক

প্রতীক ছবি

চীনের হয়ে চরবৃত্তি করার অপরাধে গ্রেপ্তার হলেন দিল্লির সাংবাদিক রাজিব শর্মা। সম্প্রতি, দিল্লি পুলিশের তরফ থেকে একটি বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে, চীনা গোয়েন্দা সংস্থার কাছে দেশের গোপন তথ্য পাচার করতেন সাংবাদিক রাজিব শর্মা। সেই অপরাধে তাকে দিল্লি পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করল। রাজীব শর্মার পাশাপাশি চীনের গুপ্তচরবৃত্তির অপরাধে কিন শি নামের এক চিনা মহিলা ও তাঁর নেপালী সহযোগী শের সিংকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

দিল্লি পুলিশ সূত্রে খবর, চীনা গুপ্তচর সংস্থার থেকে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে ভারতীয় তথ্য পাচার করছিলেন ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক রাজিব শর্মা সহ ওই তিন ধৃত। দিল্লি পুলিশের স্পেশাল সেলের ডেপুটি কমিশনার সঞ্জীব যাদবের নেতৃত্বে ধৃতদের বিরুদ্ধে তদন্ত চালায় দিল্লি পুলিশ। অপরাধীদের কাছ থেকে বেশ কিছু ল্যাপটপ, মোবাইল ফোন এবং অন্য জিনিস বাজেয়াপ্ত করেছে‌ দিল্লি পুলিশ।

এদের মধ্যে রাজীব শর্মার কাছ থেকে প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত বেশ কিছু গোপন নথি উদ্ধার করা হয়েছে। ধৃত রাজিব শর্মা একটি নামকরা সংবাদপত্রে সাংবাদিকতার সাথে যুক্ত ছিলেন।পররাষ্ট্র সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে সাংবাদিকতা করতেন তিনি। পাশাপাশি তার নিজস্ব একটি ইউটিউব চ্যানেলও রয়েছে। সম্প্রতি, আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগের সঙ্গে জড়িত দিল্লিতে বসবাসকারী বেশ কিছু চীনা নাগরিকের বাড়িতে হানা দেয় দিল্লি পুলিশ।

উল্লেখ্য, চীন যে বিভিন্ন মাধ্যমে ভারতের উপর নজর রাখছে সে বিষয়ে সতর্ক করেছেন ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা। সম্প্রতি একটি চীনা সংস্থার বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ, উপরাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নাইডু, সেনাবাহিনীর প্রধান মনোজ মুকুন্দ নারাভানে, কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী, তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়সহ ভারতের আরো ১০ জন তাবড় রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের উপর নজর রাখার অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ প্রকাশ্যে আসতেই ন্যাশনাল সাইবার সিকিয়োরিটি কোঅর্ডিনেটর কমিটির সদস্যরা এই নিয়ে তদন্ত শুরু করেছেন।