“শিয়াল চিহ্নে ভোট দিন”, কংগ্রেস পার্টি অফিসের বাইরে পোস্টার ঘিরে হতবাক জলপাইগুড়িবাসী

হঠাৎ করেই দেখা যাচ্ছে জলপাইগুড়ি শহর সরগরম এবার শিয়াল নিয়ে, কথাটা শুনে অবাক হচ্ছেন? ভোটের আগে যেখানে মানুষ ভোট নিয়ে সরগরম। সেখানে জলপাইগুড়ির মানুষ কেন শেয়াল নিয়ে এত উত্তেজনায় ভুগছে? কারণ জলপাইগুড়ির কংগ্রেস ভবন থেকে শুরু করে, থানার মোড়, রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের দেওয়াল, বাজারের দোকানপাট সমস্ত কিছুই শেয়ালের পোস্টারে ভরে গেছে। লেখা রয়েছে শেয়াল চিহ্নে ভোট দিন, আমরা শিয়ালের অনুগামী।

এই ধরনের লেখা এবং পোস্টার নিয়ে এখন শুরু হয়েছে দারুণ বিতর্ক। কংগ্রেস ভবনের সামনে কেন থাকবে এই ধরনের পোস্টার? যা নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক উত্তেজনা। এমনিতেই গত কয়েকদিন আগে কংগ্রেসের প্রার্থী পদ নিয়ে অন্দরমহলের শুরু হয়েছিল ক্ষোভ-বিক্ষোভ। সেখানকার কংগ্রেস নেতা সুখবিলাস বর্মাকে নিয়ে অনেকেই সোচ্চার হয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায় তার বিরোধিতা করতে।

এখন সেই নেতাকে নিয়ে যারা বিরোধিতা করেছে,ছবি ভাবেই তাদের উপরেই দোষ চাপানো হচ্ছে কংগ্রেস মহল থেকে এমনকি অনেকেই বলছে রাতের অন্ধকারে এই কাজ করেছে তৃণমূল। তবে এই অভিযোগ একেবারে অস্বীকার করেছে তৃণমূল। গত রবিবার কংগ্রেসের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করা হয়। আর সেখানেই যখন সুখবিলাস বর্মার নাম শোনা যায়, তখনই সেখানকার স্থানীয়রা সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্যাম্পেইন চালাতে থাকে তার বিরুদ্ধে।

কারণ সাধারণ মানুষের কর্মীদের অভিযোগ কেবলমাত্র ভোটের সময় দেখা যায় সুখবিলাস বর্মাকে, আর ভোট ফুরোলেই তিনি পাড়ি দেন কলকাতায়।ভোটের আগে যেসব প্রতিশ্রুতি তিনি দিয়ে থাকেন তা যে কেবলমাত্র মিথ্যা প্রতিশ্রুতি সেই অভিযোগ করেন সাধারণ মানুষ। তাই কোনভাবেই সুকবিলাস বর্মাকে তারা আর চায়না। তবে এই ঘটনার সাথে শিয়ালের পোস্টার এর কি সম্পর্ক রয়েছে সেটা এখনো স্পষ্ট নয়।