অভিষেকের বি’য়ে’র দিনেই হা’তে’র শিরা কা’টে’ন জাহ্নবী কাপুর! দা’বি করেন তি’নি অমিতাভ বচ্চনের পুত্রবধূ

অমিতাভ বচ্চনের পুত্র অভিষেক বচ্চনের সঙ্গে ঐশ্বর্য রায়ের বিয়ের আগে বলিউডের একাধিক অভিনেত্রীর সঙ্গে নাম জড়িয়েছিল অভিষেকের। রানী মুখার্জি থেকে শুরু করে করিশ্মা কাপুরের সঙ্গেও অভিষেকের নাম জড়িয়েছে। তবে বলিউডের এই অভিনেত্রীদের সঙ্গে অভিষেকের সম্পর্ক পরিণতি পায়নি কখনোও। রানী এবং করিশ্মাকে টপকে বচ্চন পরিবারের পুত্রবধূ হয়েছেন ঐশ্বর্য। তবে জানেন কি বচ্চন পরিবারের পুত্রবধূ হওয়ার দাবি তুলেছিলেন বলিউডেরই আরও এক অভিনেত্রী?

প্রতীক্ষার বাইরে দাঁড়িয়ে ওই দিন নাকি তিনি মরিয়া চেষ্টা করেছিলেন যাতে অভিষেকের বিয়ে না হয়! বিয়ে আটকাতে হাতের শিরা কেটে আত্মহত্যার চেষ্টা পর্যন্ত করেছিলেন!

তিনি অভিনেত্রী জাহ্নবী কাপুর। না, শ্রীদেবী কন্যা জাহ্নবী তিনি নন। তিনি বলিউডের অভিনেত্রী হলেও বলিউডে সেভাবে নিজের পরিচিতি গড়ে তুলতে পারেননি। বলিউডের মাত্র কয়েকটি ছবিতেই অভিনয় করতে দেখা গিয়েছে তাকে। তাও পার্শ্বচরিত্রের অভিনেত্রী হিসেবে। অভিষেক বচ্চনের সঙ্গেও একটি ছবিতে অভিনয় করেছিলেন তিনি। “দস” ছবিতে একটি নাচের দৃশ্যে অভিষেকের পেছনের সারিতে দেখা গিয়েছিল তাকে। ব্যাস, ওই পর্যন্তই।

Aishwarya Rai Abhishek Bachchan Marrige Jhanvi Kapoor Suicide Attempt -  अभिषेक की शादी में हुआ था जमकर हंगामा, इस मॉडल ने काट ​ली थी नस, घबरा गया  था पूरा बच्चन परिवार, जानें

তবে অভিষেকের সঙ্গে ঐশ্বর্য্যের বিয়ে কিছুতেই মেনে নিতে পারেননি তিনি। যে কারণে অভিষেক এবং ঐশ্বর্যের বিয়ের দিন অমিতাভ বচ্চনের বাড়ি “প্রতীক্ষা”য় পৌঁছে গিয়েছিলেন জাহ্নবী। তার দাবি ছিল অভিষেক তার স্বামী। অভিষেকের সঙ্গে তার সম্পর্ক বহুদিনের। তাদের মধ্যে ব্যক্তিগতভাবে যোগাযোগ রয়েছে। এমনকি অভিষেক তাকে সিঁদুর পরিয়ে বিয়ে করেছেন বলেও দাবি করেছিলেন জাহ্নবী।

এখানেই শেষ নয়, ঐদিন প্রতীক্ষাতে ঢুকে অভিষেক এবং ঐশ্বর্যের বিয়ে ভেঙে দেওয়ার প্রচেষ্টা চালিয়েছিলেন তিনি। এমনকি হাতের শিরা কেটে আত্মহত্যা করারও চেষ্টা করেন অমিতাভের বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে। পরে অবশ্য পুলিশ তাকে ঘটনাস্থল থেকে সরিয়ে নিয়ে যায়। জাহ্নবীর অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে অবশ্য অভিষেক এবং ঐশ্বর্যের সম্পর্কে কোনো আঁচ পড়েনি। পরে এ প্রসঙ্গে কথা উঠলে বচ্চন পরিবার সাফ জানিয়ে দেয়, ঘটনাটি সম্পূর্ণই জাহ্নবীর মনগড়া। এর সঙ্গে বাস্তবের কোনো যোগাযোগ নেই।