৩ দিন হয়ে গেলো দিদির উদ্দেশ্যে কোনো টুইট নেই ধনকড়ের, তবে কি হয়ে গেলো বন্ধুত্ব?

ফাইল ছবি

হঠাৎ করে বন্ধ টুইট যুদ্ধ, এই দেখে অবাক সবাই। পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় যখন থেকে ক্ষমতায় এসেছেন তখন থেকেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে ট্যাগ করে বিভিন্ন তোপ দাগতে থাকেন। কিন্তু এই টুইট যুদ্ধ হঠাৎ করেই বন্ধ। বিশেষ করে রাজ্যপাল জাগদীপ ধনকড় দিল্লি থেকে ফেরার পরেই এই নীরবতা পালন শুরু করেছেন। দিল্লি যাওয়ার আগ পর্যন্ত রাজ্যের শাসক দল কে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি তিনি।কিন্তু কি এমন হলো দিল্লিতে গিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সাথে সাক্ষাতের পরই তা বন্ধ হয়ে গেল? এই নিরবতা দেখে রাজ্যের রাজনৈতিক মহল মনে করছে তাহলে কি ধনকড় এখন নীরবতার পথেই?

গত 6 জানুয়ারি মুখ্যমন্ত্রী এবং রাজ্যপাল রাজভবনে ঘন্টাখানেক বৈঠক করেন। এরপরেই 7 জানুয়ারি লকেট চট্টোপাধ্যায় এর নেতৃত্বে এক প্রতিনিধি দলের সঙ্গে দেখা করেন রাজ্যপাল। নারী নির্যাতনের ঘটনার প্রতিকার করতেই এই সাক্ষাৎকার।পরে অবশ্য এই নিয়ে রাজ্যপালকে টুইট করতে দেখা যায় যেখানে তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে ট্যাগ করেন। তারপরেই 8 ই জানুয়ারি বঙ্গ সংস্কৃতির উদ্বোধন করেন রাজ্যপাল, সেদিনও তিনি একটি টুইট করেন। এর পরেই 9 জানুয়ারি দিল্লিতে গিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে দেখা করেন রাজ্যপাল। তাদের মধ্যে ঘন্টাখানেক বৈঠক হয়।

বৈঠক শেষে তিনি একটি টুইট করেন যেখানে তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে ট্যাগ করেন। এরপরেই সাংবাদিকদের তিনি বৈঠক সম্পর্কে কিছুটা হলেও বলেন, রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা এবং সরকারের বিভিন্ন কার্যকলাপ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন তিনি। কিন্তু তারপর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি একেবারেই নিরব। রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা রাজনীতিকরণ আরও বিভিন্ন কিছু নিয়ে একটি টুইট করতে দেখা যায়নি রাজ্যপালকে। যা নিয়ে শুরু হয়েছে নতুন জল্পনা। মুখ্যমন্ত্রীর সাথে রাজ্যপালের বৈঠক, এর পরেই দিল্লিতে অমিত শাহের সাথে সাক্ষাৎ। স্বাভাবিকভাবেই রাজনৈতিক মহল এই নিয়ে জল্পনা ছিল তুঙ্গে। তার মধ্যে তাঁর এই নীরবতা আগুনে ঘি ঢালার ব্যবস্থা করেছে।