“ভীত-সন্ত্রস্ত” মহিলাদের ভোটকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়ার দায়িত্ব মহিলা জওয়ানদের

আসন্ন একুশের বিধানসভা নির্বাচন পর্ব শুরু হতে আর খুব বেশি দেরি নেই। রাজ্যের রাজনীতি জুড়ে এখন নির্বাচন উপলক্ষ্যে সাজসাজ রব পড়ে গিয়েছে। বিধানসভা নির্বাচন উপলক্ষে প্রস্তুতি তুঙ্গে। ভোটের দায়িত্ব সামলাতে ইতিমধ্যেই বাংলায় প্রবেশ করেছে কেন্দ্রীয় বাহিনী। পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনের দায়িত্ব পালন করতে ১২৫ বাহিনীর কেন্দ্রীয় বাহিনী ইতিমধ্যেই রাজ্যে টহল দেওয়া শুরু করেছে।

এই কেন্দ্রীয় বাহিনীর সদস্যদের মধ্যে পুরুষদের পাশাপাশি মহিলা সদস্যরাও রয়েছেন। কেন্দ্রীয় বাহিনীর মহিলা সদস্য ননরাও রাজ্যের নির্বাচনী প্রেক্ষাপটে একটি বড় ভূমিকা পালন করতে চলেছেন। পশ্চিমবঙ্গের যেসকল মহিলারা ভোট দেওয়ার ক্ষেত্রে নিজেদের অসুরক্ষিত বলে মনে করছেন তারা যাতে শান্তিপূর্ণ এবং নিরাপদভাবে ভোট কেন্দ্রে পৌঁছতে পারেন তার জন্য তাদের সাহায্য করবেন কেন্দ্রীয় বাহিনীর মহিলা সদস্যরা।

পশ্চিমবঙ্গে ইতিমধ্যেই ১২৫ বাহিনীর কেন্দ্রীয় সেনা জওয়ান পৌঁছে গিয়েছেন। অচিরেই আরো ১৭০ বাহিনীর কেন্দ্রীয় সেনা বঙ্গে প্রবেশ করতে চলেছেন। সিআরপিএফের তিন কোম্পানির মহিলা জওয়ানরা ইতিমধ্যেই পশ্চিমবঙ্গে এসে গিয়েছেন। বুধবার রাত থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে টহল দিয়ে বেড়াচ্ছেন তারা। রাজ্যের পরিস্থিতির উপর নজর রাখার পাশাপাশি তাদের দায়িত্ব পশ্চিমবঙ্গের মহিলা ভোটারদের সাহায্য করা।

কেন্দ্রীয় সেনাবাহিনীর মহিলা জওয়ানরা বাংলার মহিলা ভোটারদের সঙ্গে যোগাযোগ করবেন। তাদের সাহস প্রদান করবেন এবং তারা যাতে নির্বিঘ্নে এবং নিরাপদে ভোট দিতে যেতে পারেন তা নিশ্চিত করবেন। মোটকথা আসন্ন একুশের নির্বাচনে রাজ্যের মহিলা ভোটারদের অভয় দিতে পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন কেন্দ্রীয় বাহিনীর মহিলা সেনা জওয়ানরা।