গুরুতর অভিযোগ, ট্রাম্পের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করল ইরান

কাসিম সোলামানি নামটা হয়ত সবার মনে আছে, এবার সেই কারণেই ট্রাম্পের নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করল ইরান। কাসিম সোলেমানিকে হত্যা করেছে আমেরিকা, আর সেটা ট্রাম্পের নির্দেশেই যে করা হয়েছে, সেটা ইরান জানে। তাই এবার ট্রাম্পের নামে জারি করা হল গ্রেফতারি পরোয়ানা, এর জন্য ইরান সাহায্য চেয়েছে ইন্টারপোলের।

আসলে ঘটনাটি ঘটেছে ইরানের বাগদাদে, সেখানে জানুয়ারি মাসে ড্রোন হামলা করে কাসিম সোলামানিকে হত্যা করা হয়েছিল। আর তারপরেই ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে ইরান, তারা কাসিমের মৃত্যুর হামলার প্রতিবাদ করেন অনেক আগেই, এবার সেই মৃত্যুর কারণে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করল ইরান ট্রাম্পের বিরুদ্ধে, যা নিয়ে একেবারে শুরু হয়ে গেছে ব্যাপক চাঞ্চল্য।

আসলে এই ঘটনাটি ঘটে ৩ রা জানুয়ারি, বাগদাদ বিমান বন্দরে। সেখানে আমেরিকা ড্রোন হামলা চালিয়ে কাসিম সোলামানিকে হত্যা করে, আর এই কারণেই ট্রাম্পের সাথে আরও ৩০ জনের নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয় সন্ত্রাস বাদীর কারণে ও হত্যার কারণে। তেহেরনের আইনজীবি এই মামলা করে তাদের বিরুদ্ধে। তবে স্পষ্ট ভাবে জানানো হয়েছে, এই মামলা চলবে ট্রাম্পের প্রেসিডেন্টের মেয়াদ শেষ হওয়ার পরেও।

এদিকে বলা হয়েছে বাকি ৩০ জন, যাদের নাম উল্লেখ করা হয় নি। এদিকে সেই আইনজীবী ইন্টার পোলের কাছে সাহায্যের আর্জি জানিয়েছেন। তবে এখনও কোনো ধরনের বার্তা তাদের তরফ থেকে এসে পৌঁছায় নি। জানা গেছে তেহেরানের আইনজীবী রেড নোটিশ দিয়েছে ইন্টারপোলকে। যেটা সব থেকে বড় নোটিশ, এটা দিলে কোনো দেশের প্রসাশন সেই দেশের অভিযুক্ত কে গ্রেফতার করে, আর এই নোটিশ দেশের বাইরে থেকে মানে অন্য দেশ থেকে দেওয়া হলে আরও বেশী গুরুত্ব দিয়ে দেখা হয়।

আসলে এই সোলেমানি ছিল এলিট ইউনিট কুদস ফোর্সের সেনা প্রধান। এই সোলেমানি দেশের বাইরে রাজনৈতিক ও সামরিক প্রভাব বিস্তারের ক্ষেত্রে এক নম্বরে। আর এই সুলেমানকেই আমেরিকা সন্ত্রাসী তকমা দিয়ে হত্যা করেছিল, এমনটাই ইরানের বার্তা। তবে এবার ইরান এর প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করল।