ভারত-চীন ব্যবসা বাণিজ্য আর আগের মতো হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই, জানিয়ে দিলো বিদেশ সচিব

“ভারত-চীন সীমান্ত বিতর্ক স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত, চীনের সাথে ব্যবসায়িক সম্পর্ক পুনঃ প্রতিষ্ঠিত করার কোনো প্রশ্নই ওঠেনা”, সম্প্রতি “ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ ওয়াল্ড আফেয়ার্স” এর তরফ থেকে আয়োজিত একটি ভার্চুয়াল বৈঠকে বক্তব্য রাখতে গিয়ে এমনটাই জানালেন ভারতের বিদেশ সচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলা। বিদেশ সচিবের বক্তব্য, সীমান্তের এভাবে আগ্রাসন চালানোর চেষ্টা করেছে চীন, বিগত ৪০ বছরের ইতিহাসে তা নজিরবিহীন।

‌ এদিনের ওয়েবিনারে অংশগ্রহণ করে বিদেশ সচিব বলেন, ১৯৬২ সালের ভারত-চীন যুদ্ধের পর এরকম ঘটনা এই প্রথম ঘটল। চীনা আগ্রাসনের বলি হয়েছেন ভারতের ২০ জন সেনা জওয়ান। এখনো সীমান্তে আগ্রাসন চালানোর চেষ্টা করছে চীন। এমতাবস্থায় চীনের সাথে আগের মত বাণিজ্য সম্পর্ক বজায় রেখে চলা, ভারতের পক্ষে কোনো মতেই সম্ভব নয়। তার স্পষ্ট বার্তা, সীমান্তে শান্তি প্রতিষ্ঠার না হওয়া পর্যন্ত, চীনের সাথে বাণিজ্য সম্পর্ক পুনঃপ্রতিষ্ঠা করা সম্ভব নয়।

উল্লেখ্য, ইতিমধ্যেই গত জুন মাস থেকে নিরাপত্তা সংক্রান্ত ইস্যু নিয়ে চীনের বেশ কয়েকটি অ্যাপের ভারতে ব্যবহার বাতিল করেছে ভারত সরকার। এই দিনের বৈঠকে বাণিজ্য সংক্রান্ত বিষয়ে বক্তব্য রাখতে গিয়ে বিদেশ সচিব জানিয়েছেন, অ্যাপগুলি বাতিল করা হয়েছে নিরাপত্তা রক্ষার কারণে। এর সাথে সীমান্ত বিতর্কের কোন যোগাযোগ নেই। তবে সীমান্ত প্রসঙ্গে চীনের সাথে কোনো রকম আপস করবে না ভারত।

তিনি আরো বলেছেন, বিশ্বের এক দায়িত্ববান দেশ হিসেবে ভারত বরাবরই চেয়ে এসেছে কূটনৈতিক আলোচনার মাধ্যমেই সীমান্ত বিতর্কের অবসান হোক। বিদেশ সচিবের বক্তব্যকেই সমর্থন করেছেন বিদেশ মন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। উভয় রাষ্ট্রের প্রতিই তার আবেদন, সেনারা যাতে কোনো অবস্থাতেই সীমান্তের স্থিতাবস্থা লংঘন না করেন। কূটনৈতিক স্তরের আলোচনার মাধ্যমেই ভারত চীন সীমান্ত সমস্যার দ্রুত সমাধান করা সম্ভব।