চিনা আগ্রাসন রুখতে লাদাখে নয়া স্ট্রাটেজি ভারতের, চাপে বেজিং

পূর্ব লাদাখ সীমান্তে চিনা অনুপ্রবেশ রুখতে বদ্ধপরিকর ভারতীয় সেনাবাহিনী। ভারতীয় সেনাবাহিনী সূত্রের খবর, চীনকে ঠেকাতে এবার সীমান্তে “ট্যাকটিক্যাল সিগনালিং” নীতি নিয়েছে ভারত। এই নীতির মাধ্যমে প্যাংগং লেকের দক্ষিণ এলাকা থেকে চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মিকে পিছু হটতে বাধ্য করেছে ভারতীয় সেনা জওয়ানরা। এর ফলেই বিগত কয়েক মাস ধরে চলে আসা সীমান্ত উত্তেজনা প্রশমনে সক্ষম ভারত।

ভারতীয় প্রতিরক্ষা দপ্তর সূত্রে খবর, গত কয়েকদিন ধরে যতবারই ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশ করার চেষ্টা করেছে চীন, ততোবারই ভারতের তরফ থেকে “ট্যাকটিক্যাল সিগনালিং”এর মাধ্যমে বিশেষ সতর্কবার্তা গিয়ে পৌঁছেছে চীনা লালফৌজের কাছে। এক ভারতীয় সেনা আধিকারিকের মতে, ভারত যে নিজেদের সীমান্ত রক্ষা করতে কতটা বদ্ধপরিকর, এই বিশেষ বার্তার মাধ্যমেই তা স্পষ্ট ভাবে বুঝতে পারে চীন। ফলে আর এগোতে সাহস পায়নি।

নির্দেশ অনুসারে, এবার থেকে সীমান্ত রক্ষায় শত্রু পক্ষের বিরুদ্ধে যে কোনো অস্ত্র ব্যবহার করতে পারেন ভারতীয় সেনারা। ১৯৯৬ সালের ভারত-চীন চুক্তি অনুযায়ী প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার দুই কিলোমিটার এলাকা অব্দি উভয় পক্ষেরই আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহারের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করা ছিল। সম্প্রতি চীন এই নিয়ম নিজেরাই ভেঙে দিয়েছে। ফলে, এবার থেকে ভারতীয় সেনারাও প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার করতে পারেন।

বিশিষ্ট এক সংবাদমাধ্যমে সাক্ষাত্কার দিতে গিয়ে এক ভারতীয় সেনা আধিকারিক জানালেন, সীমান্তে শত্রুপক্ষের অনুপ্রবেশ রুখতে সর্বতোভাবে প্রস্তুত ভারতীয় সেনাবাহিনী। এতদিন সীমান্তে সহননীতিতেই আস্থা রেখে ছিল ভারত। সম্প্রতি চীনা কার্যকলাপে বিক্ষুব্ধ হয়ে আক্রমণ নীতি গ্রহণ করতে বাধ্য হয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। অতএব ভারতের আক্রমনাত্মক রূপ দেখেই পিছু হটেছে চীনের সৈন্য, বলে জানাচ্ছেন ভারতীয় সামরিক দপ্তর।

সব খবর সরাসরি পড়তে আমাদের WhatsApp  Telegram  Facebook Group যুক্ত হতে ক্লিক করুন

/p>