পরম বন্ধু চীনকে নয়, কোভিডের টিকা পেতে নেপালে একমাত্র ভরসা ভারত

ফাইল ছবি

একটা সময় আদায়-কাঁচকলায় সম্পর্ক হয়ে উঠেছিল ভারত ও নেপালের মধ্যে। ভারতের কথা একেবারে উড়িয়ে দিয়ে এক নতুন মানচিত্রে সীলমোহর দিয়েছিল নেপাল সরকার, যার পর থেকেই দুই দেশের দূরত্ব বাড়তে থাকে দিনের পর দিন। আর সেখানেই ভারত হয় ওঠে নেপালের শত্রু ও বন্ধু হয়ে ওঠে চীন। কিন্তু এই বন্ধুত্বের অবসান ঘটলো বলে মনে করা হচ্ছে বিশেষজ্ঞদের মহলে। ইতিমধ্যেই নেপালের বিভিন্ন স্থানে চীনের বিভিন্ন প্রকল্প নিয়ে উঠতে শুরু করেছে বিরোধিতা সাধারণ মানুষের বিক্ষোভ। তাছাড়া বন্ধু চীনের করোনা ভ্যাকসিনের থেকে ভারতের ভ্যাকসিনেই আস্থা রাখল পরশি নেপাল।

আর আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই ভারত সফরে আসছে পড়শী নেপালের বিদেশ মন্ত্রী প্রদীপ জ্ঞাওয়ালি। যেখানে এসেই তিনি ভারতের বিদেশ মন্ত্রীর এস জয়শঙ্কর এর সাথে ষষ্ঠ ভারত নেপাল যৌথ কমিশনের বৈঠকে বসার কথা তাদের। যেখানে বন্ধু চিন আছে পাশেই , তাদের কাছ থেকে করোনা ভ্যাকসিন না নিয়ে ভারতের কাছ থেকে নিতে চাইছে নেপাল। এই নিয়ে অন্যকোনো বার্তা দিতে চাইছে নেপাল?

নেপালের বিদেশমন্ত্রী প্রদীপ জ্ঞাওয়াল ভারত সফরে এসে এই ভ্যাকসিন নিয়েই কথা বলতে চলেছে এমনটাই জানা গেছে সূত্রের মাধ্যমে। নেপাল ভারতের থেকে ১ কোটি ২০ লক্ষ ডোজ কিনতে চায়। যার কারণে এই সফরে এসে চুক্তি স্বাক্ষর করার ইঙ্গিত দিয়েছে নেপাল। যদি দেখা যায় নেপালের রাজনৈতিক মহল একেবারে ওলট পালট। গত কয়েকদিন আগেই কেপি শর্মা অলি নেপালের প্রধানমন্ত্রী আচমকাই ভেঙে দেয় সরকার।যার ফলে এই নেপালের বিদেশমন্ত্রীর ভারত সফর পিছিয়ে যায় কিছুটা। তবে আগামী এপ্রিল ও মে মাসেই ফের নির্বাচন হতে চলেছে নেপালে।।