চিনকে চাপে রাখতে অরুণাচলে সীমান্ত ঘেঁষে ব্রিজ বানাল ভারত, ঘুম উড়ছে বেজিংয়ের

একেবারে চিনে ফাকি দিয়েই ব্রিজ বানিয়ে ফেলল ভারত। চিন সীমান্ত ঘেঁষে চিনের ঘুম উড়িয়ে দিয়েই উত্তর পূর্ব ভারতে উদ্বোধন করা হল এক বিশাল সেতু। যা কিনা চওড়ার দিক থেকেও অনেকটাই, ভারত গত চার বছরের মধ্যে অনেক ব্রিজ, রাস্তা বানিয়েছে এই চিন সীমান্তের পাশ দিয়ে। আসলে দেখা গেছে অনেক রাস্তা চওড়া করেছে, সেটাকে টেনে চিন সীমান্তের কাছাকাছি নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ধোলা সাদিয়া, বগিবিলির পরে এবার ফের সেতু অরুণাচলে যেটা নাকি চিন সীমান্তের কাছাকাছি।

এই সেতুর উদ্দেশ্য খুব কম সময়েই যাতে চিন সীমান্তে যাতায়াত করতে পারে সেনারা। মাত্র ১ মাসের মধ্যেই তড়িঘড়ি করে বর্ডার রোডস অর্গানাইজেশনের কাজ হয়েছে, যার ফলেই কিনা দেখা গেছে এই ব্রিজ একেবারে দেখতে দেখতে তৈরী। অরুণাচলের সুবনসিরির ওপরে দাপোরাজো ব্রিজ এবার তৈরি করা হল, যা কিনা উদ্বোধন পর্যন্ত হয়ে গেছে। এই সেতুর দ্বারা পারাপারের সুবিধা খরস্রোতা নদীর। আসলে এই ব্রিজ সর্বোচ্চ ৪০ টন পর্যন্ত ওজন সইতে পারে। তাই সেনারা যাতায়াত করতে পারলেও ভারী ট্যাঙ্ক নিয়ে যেতে সময় লাগবে অনেকটাই। এর আগে বিআরও ধোলা শাদিয়া সেতু, বগিবিল সেতু, সিসেরী সেতু, এমন ধরনের বড় সেতুগুলো তৈরী করেছে।

এশিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম সেতঙ বগিবিলি সেতু যা প্রায় ৫ কিমির মতো দৈঘ্য যার জন্য খরচ করা হয়েছে ৫৯০০ কোটি টাকা। এই সেতুর ফলেই খুব সহজেই এখন অসমের ডিব্রুগড় থেকে অরুণাচলের ইটানগর পর্যন্ত আরো দ্রুত যাওয়া সম্ভব। এদিকে আগের থেকেই অরুণাচলকে চিন দাবি করে আসছে। তাই ১৯৬২ থেকে শিক্ষা নিয়েই ভারত ব্রক্ষ্মপুত্রের ওপরে বানিয়ে ফেলল দুটি সেতু, এদিকে জানা গেছে চিন নাকি তিব্বতে অনেকটাই সক্রিয় হয়ে উঠেছে, আর সেখানে বোমারু বিমান, ট্যাঙ্ক সেনা মোতায়েন করেছে।আর সেই কারণেই এবার ভারত সব দিক থেকে প্রস্তুত।