উত্তরপ্রদেশে শুরু হল ‘মিশন শক্তি’, নারী নির্যাতন রুখতে বড় পদক্ষেপ যোগী সরকারের

উত্তরপ্রদেশের হাথরাস গণধর্ষণ কাণ্ডের পরেও নারীদের উপর এই ধরনের একের পর এক নৃশংস অত্যাচারের ঘটনা প্রকাশ্যে আসাতে দেশজুড়ে কার্যত মুখ পুড়েছে যোগী প্রশাসনের। যোগীর রাজ্যে নারীরা কতখানি সুরক্ষিত, সে সম্পর্কে বার বার প্রশ্ন তুলছেন বিরোধীরা। প্রশ্ন উঠেছে যোগী সরকারের ভূমিকা প্রসঙ্গেও। এবার বিরোধীদের প্রশ্নের জবাবে রাজ্যে মহিলাদের সুরক্ষা নিশ্চিত করা প্রসঙ্গে নতুন পদক্ষেপ গ্রহণ করলেন যোগী আদিত্যনাথ।

উত্তরপ্রদেশে নবরাত্রির সূচনা উপলক্ষে, যোগী সরকার সে রাজ্যে “মিশন শক্তি” নামক একটি নতুন কর্মসূচি গ্রহণ করলো। এই নতুন কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে যোগী আদিত্যনাথ বলেন, রাজ্যের ১৫৩৫টি থানায় শুধুমাত্র মহিলাদের জন্য আলাদা করে রাখা হবে। সেখানে নিজেদের বিরুদ্ধে সংঘটিত অত্যাচারের বিরুদ্ধে নির্দ্বিধায় অভিযোগ জানাতে পারবেন মহিলারা।

যোগী আরো জানালেন, এই আলাদা কক্ষে মহিলা কনস্টেবলের কাছে নিজেদের অভিযোগ জানাবেন নিপিড়িতা। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে বলে আশ্বস্ত করেছেন আদিত্যনাথ। এবার থেকে মহিলাদের বিরুদ্ধে সংগঠিত সমস্ত অপরাধের বিরুদ্ধে কড়া শাস্তি প্রদান করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। উল্লেখ্য, হাথরাসের পরেও বলরামপুরের এক ২২ বছর বয়সী ছাত্রীর প্রতিও একইভাবে নৃশংস অত্যাচার করে খুন করে দুষ্কৃতীরা।

বলরামপুরের ঘটনা প্রসঙ্গে এ দিন শোক প্রকাশ করেন আদিত্যনাথ। পাশাপাশি, গ্রাম পঞ্চায়েত থেকে শুরু করে রাজ্যের প্রতিটি স্কুল-কলেজে “মিশন শক্তি” কর্মসূচির প্রচার চালাতে চায় উত্তর প্রদেশ সরকার। রাজ্য পুলিশসহ সরকারি দপ্তরের প্রত্যেক আধিকারিককে রাজ্যের এই মিশনে অংশগ্রহণ করার নির্দেশ দিয়েছেন আদিত্যনাথ।