উত্তরপ্রদেশে খুনে অভিযুক্তকে পুলিশের সামনে পিটিয়ে মারল উত্তেজিত জনতা

প্রতীক ছবি

সোমবার, পুলিশের সামনেই গণপিটুনিতে মৃত্যু হল এক খুনের অপরাধীর। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের কুশিনগর এলাকায়। স্থানীয় সূত্রে খবর, গণপিটুনিতে নিহত অপরাধী স্থানীয় এলাকার বাসিন্দা তথা এক শিক্ষকের খুনের সাথে জড়িত ছিল। খুনের পর অভিযুক্তকে পুলিশ ধরতে এলে, পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করে সে। তবে উত্তেজিত জনতা তাকে পুলিশের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিয়ে পিটিয়ে মেরে ফেলে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, এদিন সকালে কুশীনগরের রামপুর বাংরা এলাকার বাসিন্দা সুধীর সিং নামের এক শিক্ষককে তার বাড়ির সামনে গুলি করে হত্যা করে দুই বাইক আরোহী। তাদের মধ্যেই একজন আবার নিহত শিক্ষকের বাড়ির ছাদে উঠে শূন্যে গুলি চালাতে আরম্ভ করে। খবর পেয়ে উত্তেজিত জনতা শিক্ষকের বাড়ি ঘিরে ফেলে। ফলে আটকা পড়ে যায় খুনি।

এর পর ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছালে উত্তেজিত জনতার হাত থেকে বাঁচতে খুনি আর উপায়ান্তর না দেখে পুলিশের কাছেই আত্মসমর্পণ করে। পুলিশ তাকে নিজেদের হেফাজতে নিলে, জনতা পুলিশের কাছ থেকে খুনিকে ছিনিয়ে নিয়ে লাঠি-বাঁশ দিয়ে তাকে মারতে আরম্ভ করে। পুলিশ তাদের থামাতে পারেনি। ফলে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় খুনের অভিযোগে অভিযুক্ত ওই ব্যক্তির।

ঘটনা প্রসঙ্গে এসপি বিনোদ মিশ্র জানিয়েছেন, ঘটনার সঙ্গে যারা অভিযুক্ত, তাদের খোঁজ চালাচ্ছে পুলিশ। দোষীদের বিরুদ্ধে উপযুক্ত পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। উল্লেখ্য দুদিন আগে, উত্তরপ্রদেশেরই বরেলি জেলার একটি গ্রামে বশিদ খান নামক এক ব্যক্তিকে চোর সন্দেহে পিটিয়ে মেরে ফেলে গ্রামবাসীরা। ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। পুলিশ সূত্রে খবর, মদ্যপ বশিদের আচরণে সন্দেহ হয় এক নিরাপত্তাকর্মীর। এর পরই তাকে শুধুমাত্র সন্দেহের বশে নৃশংসভাবে পিটিয়ে মেরে ফেলে স্থানীয়রা।