দক্ষিণের জেলাগুলোতে কালবৈশাখীর দাপট, উপড়ে পড়লো গাছ

প্রি-মনসুন বর্ষা বলতে গেলে এসেই গেল বঙ্গে! রবিবার দক্ষিণবঙ্গে আছড়ে পড়লো কালবৈশাখী। যে কারণে সারা সপ্তাহ জুড়ে তপ্ত বাংলা শেষমেশ স্বস্তির ঠান্ডা নিঃশ্বাস ফেললো। ছুটির দিনে আর কিছু না হোক, স্বস্তিতে ঘুমোতে পারবে বাঙালি। রবিবার দুপুর সাড়ে তিনটে নাগাদ দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলায় প্রবল প্রতাপে আছড়ে পড়ে কালবৈশাখী। যে কারণে দক্ষিণবঙ্গের একাধিক প্রান্ত ঝড়ে সম্পূর্ণ তছনছ হয়ে গিয়েছে।

ঝড়ের দাপটে লন্ডভন্ড হয়ে গিয়েছে বীরভূম। বিশেষত বোলপুরের একাধিক রাস্তায় কালবৈশাখীর দাপটে গাছ উপড়ে পড়েছে। বোলপুরের চিত্রা মোড়ে গাছ উপড়ে রাস্তা আটকে গিয়েছে। যে কারণে যাতায়াতের সমস্যায় পড়েছেন এলাকার বাসিন্দারা। বোলপুর-শান্তিনিকেতন মোড়ের সুপার মার্কেটের সামনেও গাছ উপড়ে পড়েছে।

তবে যাতায়াতের সমস্যা সত্ত্বেও তীব্র তাপপ্রদাহজনিত আবহাওয়া থেকে স্বস্তি পেয়ে বেজায় খুশি বোলপুরবাসী। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, আজ যে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে কালবৈশাখী আছড়ে পড়তে পারে সেই সম্ভাবনাজনিত পূর্বাভাস আগেই দিয়েছিল আবহাওয়া দপ্তর। চলতি মরসুমের প্রথম কালবৈশাখী এটি।

হাওয়া অফিসের রিপোর্ট অনুসারে, আজ ঘন্টায় প্রায় ৩০-৪০ কিলোমিটার বেগে ঝড় বয়ে গিয়েছে। রাজ্যজুড়ে একাধিক জেলায় শিলাবৃষ্টিও হয়েছে যে কারণে ফসল নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা করছেন কৃষকেরা। তবে মরসুমের প্রথম কালবৈশাখীতে উত্তপ্ত আবহাওয়া কিছুটা হলেও নিয়ন্ত্রণে এসেছে। প্রসঙ্গত, বিগত কয়েকদিনের তীব্র দাবদাহে হাঁসফাঁস করছিলেন আপামর বাঙালি। আজকের কালবৈশাখী তাদের স্বস্তি দিয়েছে।