গত এক বছরে ভারতে খোঁজ মিলল ২৫৩টি নতুন প্রজাতির উদ্বিদ ও ৩৬৪টি প্রাণীর

সম্প্রতি, জুওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়া এবং বট্যানিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার তরফ থেকে প্রকাশিত দুটি বইয়ের মাধ্যমে জানা গেল, ২০১৯ সালে ভারতে মোট ৩৬৪টি নতুন প্রাণী প্রজাতি এবং ২৫৩টি নতুন উদ্ভিদ প্রজাতি আবিষ্কার করা সম্ভব হয়েছে। ভারতের বাইরে অবশ্য আরও ১১৬ প্রজাতির প্রাণীর খোঁজ মিলেছে। বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে এই সমস্ত জীবের সন্ধান মিললেও, ভারতে এখনো এদের খুঁজে পাওয়া সম্ভব হয়নি।

গত শুক্রবার, জুওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়া এবং বট্যানিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার কলকাতার সদর দপ্তরে এই দুটি বইয়ের উদ্বোধন করেছেন কেন্দ্রীয় বন ও পরিবেশ দফতরের মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। নতুন ৩৬৪টি প্রজাতির প্রাণের সন্ধান মেলায় বর্তমানে ভারতে প্রাপ্ত মোট প্রাণী প্রজাতির সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ১,০২,১৬১ টিতে। পাশাপাশি, এ পর্যন্ত ভারতে মোট ৫০ হাজার উদ্ভিদ প্রজাতির সন্ধান পাওয়া গেছে।

জুওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার অধিকর্তা কৈলাস চন্দ্র জানালেন, নতুন প্রাণী প্রজাতি গুলির মধ্যে চারটি প্রাণীকে জীবাশ্মের আকারে পাওয়া গেছে। চারটি উপ-প্রজাতিরও সন্ধান পাওয়া গেছে। নতুন আবিষ্কৃত প্রাণী গুলির মধ্যে বেশির ভাগটাই পতঙ্গ শ্রেণীর অন্তর্ভুক্ত বলেই জানালেন অধিকর্তা। তবে বেশ কিছু নতুন প্রজাতির সরীসৃপ, মাছ ও উভচর প্রাণীরও সন্ধান পাওয়া গেছে।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল এ সুপ্রিয় সম্পর্কে বলেছেন, আন্তর্জাতিক জীববৈচিত্র্য পূর্ণ দেশ হলো ভারত। তাই দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষার জন্য জীবের সকল উৎস নথিভূক্ত করে রাখা প্রয়োজন। এই সকল উৎস জীবের বেঁচে থাকার জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয় যা ভবিষ্যতে কাজে আসবে। উল্লেখ্য বিজ্ঞানীদের মতে পৃথিবীতে প্রায় পাঁচ কোটিরও বেশি প্রজাতি রয়েছে। যার মধ্যে পর্যন্ত মাত্র ১৮ লক্ষ প্রজাতির সন্ধান মিলেছে। যার মধ্যে ভারতে রয়েছে ১.০২ লক্ষ প্রজাতি এবং জীব বৈচিত্রের নিরিখে বিশ্বের অষ্টম স্থান অধিকার করেছে ভারত।