এই মুহূর্তে গৃহঋণ নিলে সুদ হবে অনেকটা কম, এই তারিখ থেকে মিলবে নতুন সুবিধা

এবার রিজার্ভ ব্যাঙ্ক আবাসনের ক্ষেত্রকে আরও বেশী চাঙ্গা করে তোলার জন্য বিশেষ এক পরিবর্তন করল হাউস বিল্ডিং লোনের ক্ষেত্রে। আগে যে সুবিধা পাওয়া যেত না এবার থেকে সেই সুবিধা পাওয়া যাবে, এবার থেকে সদি বাড়তি টাকা থাকে থাকলেই গৃহ ঋণে নেওয়া হবে কিছু কম সুদ। গতকাল শুক্রবার রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর শক্তিকান্ত দাস জানিয়েছেন, একজন ব্যাক্তি তার নতুন বাড়ির দামের কত শতাংশ লোন নিচ্ছে তার ওপরেই নির্ধারণ করা হবে সুদের হার। এখন উদাহরণের সাথে বুঝিয়ে দেওয়া যাক আসলে যদি ১০০ টাকার মধ্যে কেউ ৯০ টাকা ঋণ নেয় তাহলে স্বাভাবিক ভাবেই বেশী সুদ গুনতে হবে, এরপরে যদি কেউ ৭৫ টাকা ঋণ নেয় তাহলে তাকে কম সুদ গুনতে হবে।

এখন থেকে নতুন নিয়ম হিসেবে ঋণ কম নিলে কম সুদ ও ঋণ বেশী নিলে বেশী সুদ দিতে হবে। বর্তমান নিয়ম হিসেবে এখন ৮০% এর মতো ঋণ নিলেও যা সুদ দিতে হয়ে সেই ব্যাক্তিকে, সেই ব্যাক্তি যদি ৯৫% ঋণ নেয় তাকে একই সুদ দিতে হবে। তবে নতুন নিয়মে এখন আর সেই সুবিধা থাকবে না। তাই আগামী ২০২২ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত যে নতুন গৃহ ঋণ নেওয়া হবে, সেই ক্ষেত্রে এই নতুন নিয়ম লাগু হবে। কর্মসংস্থান ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে আবাসন ক্ষেত্রের অবদান রাখতেই এই সিদ্ধান্ত।

এই নিয়ে স্পষ্ট জানানো হয়েছে, আসলে ব্যাঙ্ক যখন ঋণ দেয় তখন স্বাভাবিক ভাবেই ব্যাঙ্কের ঝুকি অনেকটাই। কিন্তু যদি কোনো ব্যাক্তি বেশী ঋণ নেয় তাহলে মূল ধনী খাতে তত বেশী অর্থ রাখতে হয়, কিন্তু যখন কোনো ব্যাঙ্কতি কম ঋণ নেয় তখন ঝুকির মাত্রা কম থাকে, আর ঝুকি কম হয় বলেই, মূলধনী খাতে স্বাভাবিক ভাবেই বরাদ্দ কম রাখতে হয়, যার ফলে ব্যাঙ্ক সহজেই সুদের হার কমানোর সুযোগ পায়।