যদি কোনো বিপদের সম্মুখীন হয়েছেন, মনে সাহস জোগাতে স্মরণ করুন বাবা লোকনাথকে

৩৩ কোটি দেবতার মাঝে বাঙালির রক্ষাকর্তা যিনি তিনি হলেন ভগবান শ্রী লোকনাথ বাবা। “রণে বনে জলে জঙ্গলে, যেখানেই বিপদে পড়িবে আমাকে স্মরণ করিবে”, ভক্তদের উদ্দেশ্যে এই আশ্বাসবাণী দিয়ে গিয়েছেন লোকনাথ বাবা। আজ থেকে প্রায় তিনশো বছর আগে আবির্ভূত হয়েছিলেন তিনি। শ্রীকৃষ্ণের জন্মদিন জন্মাষ্টমীতে ১৭৩০ খ্রিষ্টাব্দের ৩১ আগস্ট ২৪ পরগণার কচুয়া গ্রামের একটি ব্রাহ্মণ পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন তিনি।

পিতার রামনারায়ণ ঘোষাল এবং মাতা কমলাদেবীর চতুর্থ সন্তান ছিলেন লোকনাথ। খুবই ছোট বয়সেই ভগবান গাঙ্গুলীর শিষ্যত্ব গ্রহণ করেন লোকনাথ। উপবীত ধারণ করে বন্ধু বেনীমাধব এবং গুরু ভগবান গাঙ্গুলির সঙ্গে পদযাত্রা শুরু করেন লোকনাথ। বিভিন্ন গ্রাম, শহর, বনে, জঙ্গলে ঘুরে ঘুরে শেষমেষ কালীঘাটে এসে সাধনা করতে শুরু করেন তিনি।

এভাবেই যোগ সাধনা করতে করতে একদিন ব্রহ্ম জ্ঞান পেয়েছিলেন তিনি। এরপর শুরু হয় তার ভারত ভ্রমণ। হিমালয় থেকে যাত্রা শুরু করে কাবুল পৌঁছান তিনি। সেখানে আবার মোল্লা সাদী নামে এক মুসলমানের সঙ্গে কোরান, বেদ-সহ বিভিন্ন শাস্ত্র নিয়ে আলোচনা করে ইসলামধর্মের তত্ত্বজ্ঞান লাভ করেছিলেন লোকনাথ।

মহাজ্ঞানী লোকনাথ তার শিষ্যদের নির্দেশ দিয়েছিলেন তার মৃত্যুর ১০০ বছর পর থেকে যেন তার লীলা জগতে প্রচার করা হয়। আজও বাঙালির ঘরে ঘরে শিবের অংশ হিসেবে পূজিত হন লোকনাথ। সোমবার শিবের পাশাপাশি লোকনাথের বার। এইদিন লোকনাথের পূজা করলে সংসার শান্তি এবং সমৃদ্ধিতে ভরে ওঠে, এমনটাই বিশ্বাস ভক্তদের।