বাড়িতে এই চারটি ঘটনা ঘটলে বুঝবেন লক্ষ্মী মাতা গৃহ ত্যাগ করতে চলেছেন শীঘ্রই

আমরা সকলেই জানি যে আমাদের জীবন যেন সব সময় সুখকর হয়ে থাকে। কিন্তু সব সময় যদি জীবন সুখময় হয়ে থাকে, তাহলে আমাদের জীবনে কোন রোমাঞ্চ থাকবে না। দুঃখ পেলে তবেই সুখের মজা আসে। পরিশ্রম করলে তবেই সাফল্যের সুখ পাওয়া যায়। তাই কোনো ভাবে দুঃখ পেলে জীবনে হতাশ হয়ে পড়বেন না। জানবেন আগামী দিনে আপনার জন্য সুখ অপেক্ষা করে রয়েছে।

আমাদের জীবন খুশিতে কাটানোর জন্য অর্থের প্রয়োজন হয়,তাই আমাদের মধ্যে অনেকেই ধনসম্পত্তি দেবি মাতা লক্ষী কে প্রশ্ন করার জন্য চেষ্টা করে থাকেন। যদি মাতা লক্ষী আপনার ওপর অসন্তুষ্ট হন, তাহলে আপনার জীবনে বার বার বাধা বিপদ আসতে পারে। আপনার জীবনে কঠোর পরিশ্রম করা সত্ত্বেও আপনি জীবনে কখনো সফলতা পাবেন না। তাই আজকে চলুন জেনে নিন, কোন কোন সংকেত গুলি দেখলে বুঝতে পারবেন, মাতা লক্ষী আপনার ওপর অসন্তুষ্ট হয়ে রয়েছেন।

অন্ন এর অপমান: শাস্ত্র অনুযায়ী যে বাড়িতে খাবারের অপমান করা হয়, সেখানে কখনো মাতা লক্ষী বাস করেন না। তাই আপনার গৃহে যদি অন্ন এর অপমান হয়ে থাকে, তাহলে অবিলম্বে তা বন্ধ করুন।মা লক্ষীকে প্রশ্ন করার জন্য আজকে থেকেই শুরু করে দিন পূজা-অর্চনা।

বৃদ্ধ লোক কে অপমান করা: জ্যোতিষ শাস্ত্র অনুযায়ী যে বাড়িতে বৃদ্ধ লোকেদের অপমান করা হয়, সেখানে কখনোই অধিষ্ঠান করেন না মাতা লক্ষী। তাহলে আপনার বাড়িতে যদি বৃদ্ধ লোকেদের অপমান হয়ে থাকে,তাহলে স্বীকার ও তা বন্ধ করে দিয়ে তাদের সেবা করা শুরু করে দিন।এটি করার ফলে মা লক্ষ্মী আপনার গৃহে পুনরায় বসবাস করার জন্য অধিষ্ঠিত হবেন।কারণ একজন মা কখনো তার সন্তানের উপর রাগ করে থাকতে পারেন না ।

পরিবারে ঝামেলা করা: যদি আপনার পরিবারে নিয়মিত অশান্তি হয়ে থাকে, তাহলে বুঝবেন যে মাতা লক্ষী আপনার গৃহত্যাগ করতে চলেছেন। মা লক্ষ্মী শান্তি বজায় রাখতে পছন্দ করেন।তাই আপনার উচিত আপনার পরিবারের মধ্যে সব সময় শান্তি এবং শৃঙ্খলা বজায় রাখা।

মিথ্যা কথা বলা: আমি যদি সর্বদা মিথ্যা কথা বলেন, এবং অন্য কাউকে দুঃখ দিয়ে থাকেন, তাহলে আপনার গৃহ থেকে মা লক্ষ্মী চলে যেতে পারে। আপনার মিথ্যা হয়তো কেউ ধরতে পারবেনা,কিন্তু স্বয়ং ভগবান তার জন্য আপনাকে শাস্তি দিতে পারে।

তাই এই কাজ করলে অবিলম্বে এগুলিকে বর্জন করে সুখ এবং শান্তির সাথে বসবাস করুন এবং আজ থেকেই মাতা লক্ষ্মীর আরাধনা করা শুরু করে দিন।