জেলার কো’নো অংশে সংক্রমণ বে’শি হলেই হটস্পট চি’হ্নি’ত করে কন্টেনমেন্ট ঘো’ষ’ণা, সি’দ্ধা’ন্ত রাজ্যের

রাজ্যে করোনা সংক্রমনের গতিতে নিয়ন্ত্রণ আনতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে সারা রাজ্য জুড়ে লকডাউন বিধি চালু আছে। তবে লকডাউনের তৃতীয় পর্যায়ে অবশ্য বেশ কিছু ক্ষেত্রে নিয়মের শিথিলতা এনেছে রাজ্য সরকার। তবুও কড়া লকডাউন বিধি মেনে চলতেই হবে। মঙ্গলবার রাজ্য সরকারের তরফ থেকে নতুন করে করোনা সতর্কতা বিধি সংক্রান্ত একটি নির্দেশিকা প্রকাশ করা হয়েছে।

এই নির্দেশিকায় জেলা প্রশাসনকে জেলা স্তরের করোনা সংক্রমণের হটস্পট চিহ্নিত করে প্রয়োজনে ‘কনটেনমেন্ট’ বা ‘মাইক্রো-কনটেনমেন্ট জোন’ ঘোষণা করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। শুধু তাই নয় প্রতিটি জেলা থেকে করোনা সংক্রমনের পরিসংখ্যান রাজ্য সরকারের কাছে পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি করোনা নিয়ন্ত্রণে কড়া নজরদারি এবং আক্রান্ত রোগীদের দ্রুত চিকিৎসার ব্যবস্থা করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

মুখ্যসচিব এইচ কে দ্বিবেদী মঙ্গলবারে নতুন নির্দেশিকা প্রকাশ করেছেন। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ১৫ই জুন পর্যন্ত রাজ্য সরকারের নির্দেশে রাজ্য জুড়ে কঠোর করোনাবিধি লাগু করা ছিল। সেই পর্যায়ে শেষ হতেই বেশ কিছু ক্ষেত্রে নতুন করে ছাড় দিয়ে ১৬ই জুন থেকে আগামী পয়লা জুলাই পর্যন্ত ফের লকডাউন চালু করা হচ্ছে। করোনা দমনে পুর এলাকা, পঞ্চায়েত এলাকার প্রধান এবং জেলাশাসকদের উপর দায়িত্ব দিয়েছে রাজ্য।

এই দফায় করোনা সংক্রমণ যেখানে বেশি সেই জায়গাগুলিকে প্রয়োজনে কনটেনমেন্ট’ বা ‘মাইক্রো-কনটেনমেন্ট জোন’ হিসেবে ঘোষণা করার নির্দেশ দিয়েছেন রাজ্যের মুখ্য সচিব। সেইসঙ্গে এলাকাবাসীকে আরো সতর্ক হওয়ার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। সংশ্লিষ্ট সব দপ্তর, পুরসভা এবং জেলাগুলিকে এলাকাবাসীকে সতর্ক করার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।