না জিতলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ির সামনে নিজের “মরদেহ” রাখতে চান এই প্রার্থী

আসন্ন একুশের লড়াইয়ে দিদির পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন বহু নতুন মুখ। একুশের লড়াইয়ে যে কেন্দ্রে যার জয়ের সম্ভাবনা সবথেকে বেশি, তাকেই বাছাই করে নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হয়ে যাওয়ার পরপরই আপাতত জয়ের লক্ষ্যে এগিয়ে চলেছেন দিদির সৈনিকরা। প্রার্থীরা প্রত্যেকেই প্রায় নিজেদের জয় সম্পর্কে নিশ্চিত। তবে দিদির সৈনিকের মধ্যে একজন আবার লড়াইয়ের চ্যালেঞ্জ স্বরূপ একেবারেই অভিনব দাবি করে বসলেন।

রাজারহাট-নিউটাউন কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী তাপস চট্টোপাধ্যায় তার জয়ের সম্ভাবনা নিয়ে এতোটাই নিশ্চিত যে নিজের জীবনই বাজি রেখে বসলেন। তার দাবি একুশের লড়াইয়ে যদি তিনি হেরে যান তাহলে ভোটের ফলাফল ঘোষণার পরদিনই “ডেড বডি” মিলবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ির সামনে!

প্রসঙ্গত, শুক্রবার তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হওয়ার পরপরই দলের হয়ে প্রচারে অনুগামীদের নিয়ে পথে নেমে গিয়েছেন তাপস চট্টোপাধ্যায়। তার দাবি অনুসারে, কোনো বহিরাগত কিংবা গুজরাটের মানুষজন বাংলা শাসন করবে না! বাংলার মানুষই তা হতে দেবেন না। তিনি আরো বলেছেন, তিনি এবং তার অনুগামীরা কোনো ভেদাভেদ না করেই এখানে একত্রে সরস্বতী পুজো, দুর্গাপুজো, ঈদ, মহরম পালন করে থাকেন।

প্রসঙ্গত রাজনীতিতে তাপস চট্টোপাধ্যায়ের ট্রাক রেকর্ড বেশ ভালো। রাজারহাট-গোপালপুর পুরসভায় টানা তিনবারের জন্য চেয়ারম্যান হয়েছেন তাপস চট্টোপাধ্যায়। ২০১৫ সালে বাম শিবির ছেড়ে তৃণমূল শিবিরে যোগদান করেছিলেন তিনি। তারপর থেকেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অত্যন্ত বিশ্বাসভাজন হয়ে ওঠেন তাপস চট্টোপাধ্যায়। দলে একাধিক দায়িত্বও পেয়েছেন তিনি। একুশের লড়াইয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ফের তার উপরেই ভরসা রেখেছেন। তাই জয়ের লক্ষ্যে অবিচল রয়েছেন এই নেতা।