গতির পর ধেয়ে আসবে ঘূর্ণিঝড় ‘নিভার’, নতুন করে আশঙ্কা আবহাওয়াবিদ দের

২০২০ যেনো ঘূর্ণিঝড়ের বছর। কারণ একের পর এক ঘূর্ণিঝড় সারা দেশেই তান্ডব লীলা চালাচ্ছে। বাংলায় আমফান, মহারাষ্ট্রে নিসর্গ ও এবার অন্ধ্রপ্রদেশ উপকূলে গতি। কিন্তু এখানেই শেষ না। কারণ এবার আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে আগামী দিনে ফের বঙ্গোপসাগরে তৈরী হতে চলেছে নিম্নচাপ যার ফলে এবার পুজো মাটি হওয়ার সম্ভাবনা আছে। এদিকে আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে এখন শরতের রুপ নেই আর আগের মতো, দেখা যায় না আকাশে পেঁজা তুলোর মেঘ, সেই শরতের মলীন বাতাস সব কিছুই হারিয়ে গেছে কোথাও।

এখন ভ্যাপসা গরম, আর্দ্রতা জনিত অস্বস্তি সব মিলিয়ে দম বন্ধ পরিস্হিতি। আর এর ফলেই ঘূর্ণিঝড়ের আনাগোনা, আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে এবার গতির পরে অপেক্ষা করতে হবে নতুন ঘূর্ণিঝড় ‘নিভার’। গরম চলে গেল শীত আসলেই যে শান্তি সেটা ভাবলে হবে না। কারণ ইতিমধ্যে মৌসম ভবন জানিয়েছে আসলে এই শীত পরলেই নাকি ফের নতুন ঘূর্ণিঝড়ের দেখা পাওয়া যাবে, যা একটা সময় সাইক্লোনেও পরিণত হতে পারে। আমফান তৈরী হয়েছিল বঙ্গোপসাগরে, এদিকে নিসর্গ তৈরী হয়েছিল আরব সাগরে। এবার ফের এক ঘূর্ণিঝড় গতি যেটা তৈরী হয়েছে বঙ্গোপসাগরেই তবে সেটা অন্ধ্রপ্রদেশের উপকূলে আছড়ে পরেছে।

ইতিমধ্যে ঘূর্ণিঝড়ের নামকরণ হয়ে গেছে, নতুন ১৩ টি ঘূর্ণিঝড়ের নাম দিয়েছে ১৩ টি দেশ। যার মধ্যে আমফান, নিসর্গ, গতি, নিভার, বুরেভি, তকলি, যাস, গুলাব, শাহিন, জওয়াদ, অশনি, সিতরং, ম্যানডোস, ও মোচা। এই সব নাম দিয়েছে ভারত, বাংলাদেশ, ইরান, মায়ানমার, পাকিস্তান, কাতার, সৌদি আরব ও আরও দেশ। ভারত বাংলাদেশের নামাঙ্কিত ঘূর্ণিঝড় বয়ে গেলে এবার ইরানের নামাঙ্কিত ঘূর্ণিঝড়ের পালা।