তবে কি বিধানসভা ভোটের পরই মাধ্যমিক পরীক্ষা? দেখুন কি বললেন শিক্ষামন্ত্রী

ফাইল ছবি

করোনা মহামারীর জেরে আগামী বছরে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে অর্থাৎ ফেব্রুয়ারি মার্চের মধ্যে মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিকের পরীক্ষা সম্পন্ন করা হবে কিনা, সে সম্পর্কে এমনিতেই ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে যথেষ্ট সন্দেহ আছে। সেই বিতর্ক আরো উস্কে দিলেন রাজ্যের শিক্ষা মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। বুধবার, সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানালেন, আগামী বছরের মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিকের পরীক্ষা এখনো আলোচনার পর্যায়ে রয়েছে।

তিনি বলেছেন, সামনেই বিধানসভা নির্বাচন। এখন ক্লাস হওয়া সম্ভব নয়। তাছাড়া সিলেবাসও‌ শেষ হয়নি। মুখ্যমন্ত্রীকে বিষয়টি নিয়ে জানানো হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। উল্লেখ্য, করোনা মহামারীর জেরে, এখনো কোন সিলেবাসে পরীক্ষা হবে সে বিষয়ে নিশ্চিত নন ছাত্র-ছাত্রীরা। পাশাপাশি, আগামী বছরের পরীক্ষার সময়সূচিও এখনো পর্যন্ত প্রদান করা হয়নি। স্বভাবতই পরীক্ষা নিয়ে দোটানায় পড়ুয়ারা।

তবে এরমধ্যেও আইসিএসসি এবং সিবিএসসি বোর্ডের তরফ থেকে দশম এবং দ্বাদশ শ্রেণীর সিলেবাস সম্পর্কে সমস্ত খুঁটিনাটি তথ্য প্রদান করা হয়েছে। সেই মতো প্রস্তুতিও শুরু করে দিয়েছেন পরীক্ষার্থীরা। তবে পশ্চিমবঙ্গ মধ্য শিক্ষা পর্ষদ এবং উচ্চ শিক্ষা সংসদের তরফ থেকে এখনো মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিকের পরীক্ষা এবং সিলেবাস সংক্রান্ত কোনো তথ্য প্রদান করা হয় নি।

সূত্রের খবর, আসন্ন পরীক্ষার ক্ষেত্রে সিলেবাস কমানো হবে কিনা বা কমালেও কতটা কমানো‌ হবে সেই নিয়ে সিলেবাস কমিটির সদস্যরা আলোচনা চালাচ্ছেন। সিলেবাস ঠিক না হওয়ায় ফেব্রুয়ারি মাসেই পরীক্ষা হবে কিনা সে নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ প্রকাশ করেছেন বিশেষজ্ঞ দল। স্কুল শিক্ষা দপ্তর সূত্রে খবর, করোনার কারণে এ পর্যন্ত মাত্র ৩৫ শতাংশ সিলেবাস শেষ করতে পেরেছে স্কুল গুলি। শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্য অনুযায়ী,আগামী বছরের মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা সম্পর্কে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন মুখ্যমন্ত্রী।