জেলায় কিভাবে চলবে লোকাল ও প্যাসেঞ্জার ট্রেন, এই সপ্তাহে তা স্পষ্ট হবে

রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় ধীরে ধীরে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হচ্ছে, কিন্তু এখনও বিভিন্ন শহরতলিতে সেই ভাবে লোকাল ও প্যাসেঞ্জার ট্রেন পরিষেবা চালু হয় নি, তাই সেই পরিষেবা কতটা দ্রুত ও স্বাভাবিকভাবে শুরু করা যায় তার জন্যই আগামী সপ্তাহে ফের বৈঠকে বসতে চলেছে রেল ও রাজ্য সরকার। ১১ নভেম্বর থেকে কলকাতার আশেপাশে ট্রেন পরিষেবা চালু হলেও, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, বীরভূম, দুই বর্ধমান, মুর্শিদাবাদ এই সব জায়গায় ট্রেন পরিষেবা চালু হয় নি, যা নিয়েই এবার দাবি উঠেছে। এখন পরিস্থিতি বিবেচনা করে ইতিমধ্যে রাজ্য সরকার অনুমতি দিয়েছে, যেভাবেই হোক দ্রুত ট্রেন চলাচল শুরু করাতে হবে।

তার জন্য যে প্ল্যানিং এর দরকার, সেটা নিয়েই আগামী সপ্তাহে এই রাজ্য ও রেল কর্তৃপক্ষের মধ্যে বৈঠক। এই বৈঠক আগামীকাল সোমবার হওয়ার কথা ছিল কিন্তু আগামীকাল রাজ্যের শীর্ষ্কর্তারা থাকবে বাকুড়ার প্রশাসনিক বৈঠকে। তাই মঙ্গলবার সেই বৈঠক করার পরিকল্পনা করা হচ্ছে। এখন কোনোভাবেই রাজ্য সরকার দেরি করতে চাইছে না রেল পরিষেবার শুরুর ক্ষেত্রে। ইতিমধ্যে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে রেলকে পুরোপুরি সাহায্য করতে প্রস্তুত রাজ্য।

তবে রাজ্যের সাথে রেলের যে পরিষেবামূলক সমন্বয় সেটা এবারও প্রয়োজন আছে বলে জানিয়েছে রাজ্য। তাই শহর তলি যেমন রেল চলাচলের রুপ্ রেখা আছে তেমনভাবে শহরের বাইরের ক্ষেত্রেও সেটা তৈরী করাটা প্রয়োজন। কারণ দেখতে হবে অসংখ্য মানুষ এই রেলের ওপরেই নির্ভর করে থাকে। তাই বিভিন্ন শাখায় রেল পরিষেবা চালু করার জন্য নিখুঁত পরিকল্পনা করার কথা বলা হয়েছে।