ভোটের রে’জা’ল্ট বের হতেই উ’ত্ত’প্ত চোপড়া, চললো মা’র’ধ’র-লু’ট’পা’ট, নীরব দ’র্শ’ক প্রশাসন

গতকাল একুশের নির্বাচনী ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। একুশের এই লড়াইয়ে গেরুয়া শিবিরকে হারিয়ে দিয়ে রাজ্যের মসনদ আরো একবার দখল করে নিল তৃণমূল। গতকাল ফলাফল প্রকাশের প্রাক মুহূর্ত থেকেই তৃণমূল সমর্থকরা জয়ের উল্লাসে মেতে ওঠেন। তবে রাজ্যজুড়ে কিন্তু ভোটের ফলাফল প্রকাশের পর বিক্ষিপ্ত অশান্তির খবরও পাওয়া যাচ্ছে। বেশ কিছু জায়গা থেকে খবর আসছে বিজেপি নেতাকর্মীদের ওপর চড়াও হচ্ছেন তৃণমূল সমর্থকরা।

গতকাল ফলাফল প্রকাশের সময় থেকেই রাজ্যে হিংসার গতি বাড়তে থাকে। জিত সম্পর্কে নিশ্চিত তৃণমূল সমর্থকরা বিজেপি নেতা কর্মীদের উপর আক্রমণ চালাচ্ছেন, তাদের বাড়িঘরে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হচ্ছে, তাদের উপর হামলা চালানো হচ্ছে, বিজেপির তরফ থেকে তৃণমূলের বিরুদ্ধে এমনই মারাত্মক সব অভিযোগ আনা হয়েছে। সোনাপুর, মাঝিয়ালী, দাসপাড়া, ঘিরনিগাঁও এর মত জায়গাগুলি থেকে অশান্তির খবর পাওয়া গিয়েছে।

বিজেপি কর্মীদের অভিযোগ, ভোটের ফলাফল প্রকাশের পর থেকেই এলাকাজুড়ে তৃণমূল কর্মী সমর্থকদের তাণ্ডব বৃদ্ধি পায়। কোথাও বিজেপি কর্মী সমর্থকদের মারধর করা হয়, কোথাও আবার বিজেপির পার্টি অফিস কিংবা বাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়! উল্লেখ্য, সবক্ষেত্রেই কিন্তু প্রশাসন নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করেছে বলে অভিযোগ করেছে বিজেপি।

বিজেপি কর্মী সমর্থকদের অভিযোগ, উত্তর দিনাজপুরের চোপড়ায় একের পর এক দোকানপাট লুট হলেও প্রশাসন নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করেছে। তৃণমূল কর্মী সমর্থকদের তাণ্ডবে বিধ্বস্ত বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত বিশেষ করে উত্তর দিনাজপুর থেকে তৃণমূলের বিরুদ্ধেএই ধরনের অভিযোগ উঠেছে।