মদের হো’ম ডেলিভারী, আসছে অ্যা’প, ঘ’রে ব’সে’ই করে নি’ন রেজিস্ট্রেশন

দেশজুড়ে করোনার প্রভাব কমছে। করোনার দ্বিতীয় পর্যায়ে যেমন ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছিল এই অতি ক্ষুদ্র ভাইরাস, তার থেকে বর্তমানে কিছুটা স্বস্তিতে রয়েছেন ভারতবাসী। করোনার দ্বিতীয় পর্যায়ে সবথেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল দিল্লি। তবে কঠোর বিধি-নিষেধ পালন করে শেষমেষ দিল্লির করোনা সংক্রমণের বর্ধিত হারে কিছুটা হ্রাস জানা গিয়েছে। ধীরে ধীরে ছন্দে ফিরছে রাজধানী শহর। চালু হচ্ছে বহু জরুরী পরিষেবা। তার সঙ্গেই চালু হচ্ছে অনলাইন মদ ডেলিভারি পরিষেবা!

দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের নির্দেশে দিল্লিতে আর কিছুদিনের মধ্যেই চালু হয়ে যাবে অনলাইন মদ ডেলিভারি। রাজধানী শহরে যে সকল মদ বিক্রেতার কাছে এল-১৩ লাইসেন্স আছে, তারা অনায়াসেই এবার থেকে গ্রাহকের বাড়ি বাড়ি মদ পৌঁছে দিতে পারবেন বলে জানানো হয়েছে। এর জন্য বানানো হচ্ছে নির্দিষ্ট মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন এবং ওয়েবসাইট। যার মারফত বাড়িতে বসেই মদের অর্ডার দিতে পারবেন গ্রাহক।

প্রশাসনের তরফ থেকে জানানো হয়েছে যে এবার থেকে আর ফোন কলের মাধ্যমে মদের অর্ডার দেওয়া যাবেনা। একমাত্র অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে অথবা ওয়েবসাইট মারফত মদের অর্ডার দেওয়া যাবে। তবে এই পরিষেবা চালু জন্য প্রয়োজনীয় অ্যাপ্লিকেশন অথবা ওয়েবসাইট সম্পর্কিত কোনো তথ্য এখনো সরবরাহ করেনি সরকার। বিষয়টি আপাতত প্রস্তুতির পর্যায়ে রয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

যেসকল মদ্য বিক্রেতা দিল্লি শহরের মদ বিক্রি করতে ইচ্ছুক, তাদের প্রথমে ওই অ্যাপ্লিকেশন এবং ওয়েব সাইটে রেজিস্টার করতে হবে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এর আগে গত বছর পশ্চিমবঙ্গ, মহারাষ্ট্র, উড়িষ্যার মত রাজ্যগুলিতে অনলাইনে মদ ডেলিভারি পরিষেবা শুরু হয়েছিল। অ্যামাজন, জোমাটো, বিগবাস্কেট, সুইগীর মতো অনলাইন প্লাটফর্মগুলি থেকে মোদির অর্ডার করে বাড়িতেই মদ পেয়ে যাচ্ছিলেন গ্রাহকেরা।