উচ্চ মাধ্যমিক: “ছাত্র বান্ধব” মূল্যায়ন প’দ্ধ’তি আ’ন’লো সংসদ, জেনে নিন

করোনা পরিস্থিতির জন্য চলতি বছরে মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা প্রথমত বন্ধ করে দেওয়া হয় এবং পরে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় যে পরীক্ষা হবে কিন্তু করোনা পরিস্থিতির না কমানোর জন্য পরীক্ষা গুলিকে স্থায়ীভাবে নিষিদ্ধ করে রাখা হয় এবং কেমন ভাবে উচ্চ মাধ্যমিকের পরীক্ষা নেওয়া যাবে তার নানা রকম ভাবে চেষ্টা করা হয়।

অবশেষে শিক্ষা সংসদ থেকে একটি নতুন পদ্ধতি প্রকাশ করা হল। “ছাএ বান্ধব” মূল্যায়নের দ্বারা ছাত্রছাত্রীদের পরীক্ষার ফল ঘোষণা করা হবে কিন্তু কিভাবে এই মূল্যায়ন করা যেতে পারে তা, বিশদে জানিয়েছে সাংবাদিক বৈঠকে শিক্ষা সংসদ। শুক্রবার দিন সাংবাদিক বৈঠকে এই ঘোষণা করা হয়েছে।

বলা হয়েছে যে ২০১৯ সালের মাধ্যমিক পরীক্ষায় ছিল সাতটি বিষয় এবং তার মধ্যেই নম্বর দেখা হতো চারটি বিষয়ের ওপর, সেই বিষয়গুলি থেকে ৪০ শতাংশ নম্বর এই পরীক্ষায় যুক্ত হবে এবং ১২ ক্লাসের ফল ঘোষণা করা হবে এবং অন্যদিকে ২০২০ সালের একাদশ শ্রেণির পরীক্ষা হয়েছে সেখানের নাম্বার যুক্ত করা হবে ৬০ শতাংশ। এই পদ্ধতিতে যদি কোনো ছাত্রছাত্রী সন্তুষ্ট না হন তবে তারা পরীক্ষায় বসতে পারবেন, সেটা সময়ের উপর নির্ভর করে পরিস্থিতি যখন স্বাভাবিক হবে তখন। তারপরে যখন ওই পরীক্ষাটি কোন ছাত্র-ছাত্রী দেবে তার ফল প্রকাশিত হবে, সেটাই হবে তার ক্ষেত্রে উচ্চ মাধ্যমিকের ফল।

২০২১ সালে যারা উচ্চমাধ্যমিক দেবেন তাদের ২০১৯ সালে যে চারটি বিষয়ের ও সবচেয়ে বেশি নাম্বার থাকবে, সেখান থেকে নাম্বার ৪০% নেয়া হবে এবং তার পরের ২০২০ সালের একাদশ শ্রেণির যে নাম্বার সেখান থেকে ৬০ শতাংশ নেওয়া হবে। এই পদ্ধতির মাধ্যমে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার মূল্যায়ন করা হবে। বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ এবং সকলের মতামত অনুযায়ী এই ধরনের একটি পদ্ধতিকে বেছে নেওয়া হয়েছে।