ক্রমশ গভীর হবে নিম্নচাপ, বিভিন্ন এলাকায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস

সপ্তাহের শেষেও এক বিশাল নিম্নচাপ ও ঘূর্ণাবাতের আশঙ্কা করছে আবহাওয়া দপ্তর। কারণ শোনা যাচ্ছে আগামী রবিবার ফের বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপের আশঙ্কা যার ফলেই একটা ভারী প্রভাব পরতে চলেছে অন্ধ্রপ্রদেশ, ওড়িশা, ও পশ্চিমবঙ্গ উপকূলে। এদিকে শুক্রবার আবার নিম্নচাপ তৈরী হবে আন্দামান বঙ্গোপসাগরে, সেটাই অগ্রসর হবে উত্তর পশ্চিম বঙ্গোপসাগরের দিকে, আর সেখানেই আরও বেশী শক্তি সঞ্চয় করবে সেটা।

বিশেষ করে বেশী প্রভাব পরবে ওড়িশা, অন্ধ্রপ্রদেশ, এর পরে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গ উপকূলে। উপকূলের জেলাগুলোতে শুরু হবে দফায় দফায় বৃষ্টি। ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে কিছু জেলায়। এই নিম্নচাপের ফলে স্বাভাবিকভাবেই উত্তাল থাকবে সমুদ্র, তাই মৎস্যজীবীদের সমুদ্র থেকে দূরে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এদিকে আবার দক্ষিণ বঙ্গের সাথে উত্তরবঙ্গের জেলাগুলোতেও ভারী প্রভাব পরবে, তবে আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে তেমন একটা ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস নেই। উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় হালকা মাঝারী বৃষ্টির আশঙ্কা আছে। এদিকে ঝাড়গ্রাম, দুই ২৪ পরগনা, দুই মেদিনীপুর, দুই বর্ধমান সব জায়গায় একটা বজ্রবিদ্যুত সহ হালকা মাঝারী বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে। স্বাভাবিক ভাবেই কলকাতার আকাশ ছিল সকাল থেকেই মেঘলা, তার কারণে আর্দ্রতা জনিত অস্বস্তি।

এদিকে বিভিন্ন রাজ্যের উপকূলের জেলাগুলোতে আজ মঙ্গলবার ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা ছিল, উত্তরবঙ্গের সাথে উত্তর পূর্ব ভারতের ওপরেও একটা ভারী প্রভাব পরতে চলেছে। অসম, মেঘালয়, মণিপুর, মেঘালয় সব জায়গায়। আগামীকাল বুধবার বৃহস্পতিবার আন্দামান নিকোবর সহ পুডুচেরী, তামিলনাড়ু, কেরল সব জায়গায় ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে।