ভুল করে নিয়ে ফেলেছেন ৭ সন্তান, এখন দিতে হচ্ছে ক্ষতিপূরণ

প্রত্যেক দেশেই বেঁধে দেওয়া হচ্ছে সন্তানের জন্মের সংখ্যা। যেভাবে প্রতিটি দেশে বেড়ে চলেছে জনসংখ্যা, যে জায়গায় দাঁড়িয়ে প্রত্যেক দেশের সরকার ঠিক করে দিচ্ছেন যে একটি অথবা দুটির বেশি সন্তান জন্ম দিতে পারবেন না দম্পতিরা। বেশি সন্তান জন্ম দিলে অবিলম্বে শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে। সম্প্রতি সাতটি সন্তান জন্ম দেওয়ার ফলে এক দম্পতিকে দিতে হলো ১ লাখ ৫৫ হাজার ডলার। ভারতীয় মুদ্রায় যা হয় প্রায় এক কোটির বেশি। সাম্প্রতিক সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট প্রতিবেদনের মাধ্যমে শুনতে পাওয়া গেছে এই কথা।

৩৪ বছর বয়সী মহিলা জাং রং রং এবং তার ৩৯ বছরের স্বামী সাতটি সন্তানের অভিভাবক। তাদের রয়েছে পাঁচ ছেলে এবং দুই মেয়ে। বহু বছর ধরে চিনে দুই সন্তানের নীতি রয়েছে। তাই এত গুলো সন্তান থাকার কারণে ক্ষতিপূরণ দিতে হলে এই দম্পতিকে। ক্ষতিপূরণ না দিতে চাইলে তাদের সরকারি অথবা বেসরকারি কোন পরিচিতি থাকতো না। তাই বাধ্য হয়ে দিতে হলো ক্ষতিপূরণ।ক্ষতিপূরণ দেওয়ার পর দেশের নাগরিক হিসেবে তাদের গ্রহণ করা হলো।

সরকারি পরিচিতি ছাড়া যে কোন দেশে বেঁচে থাকা সম্ভব নয় তা আমরা সকলেই জানি। তাই সন্তানকে বাঁচাতে এবং দেশের নাগরিকত্ব পাবার জন্য এই পদক্ষেপ নিতে হলো এই দম্পতিকে। এই প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে জংশন জানান,চীনের স্কিন কেয়ার অঞ্চলে এই দম্পতির গহনা এবং পোশাকের ব্যবসা আছে।একাকীত্ব কাটানোর জন্য একাধিক সন্তানের জন্ম দিতে চেয়েছেন এই দম্পতি। ব্যবসার কারণে স্বামী প্রায়ই বাইরে থাকতেন। বাড়িতে একা অসহায় বোধ করতেন তার স্ত্রী।

এরই মধ্যে বড় সন্তানদের বেশি বয়স হয়ে যাবার ফলে তারা পড়াশোনার জন্য বাইরে চলে যায়। আরো একবার একাকিত্বের শিকার হতে হয়েছে মহিলাকে। অবশেষে স্বামীর সঙ্গে আলোচনা করেই তারা সিদ্ধান্ত নেন যে তারা একাধিক সন্তানের বাবা মা হবেন।একাকীত্ব কাটানোর জন্য দেশের নিয়ম লঙ্ঘন করার জন্য পিছপা হননি তারা। তবে সাতখানি সন্তানের পর আর কোন বাচ্চা চান না বলেও জানিয়েছেন তারা।