হেঁসেলে ঢু’কে প’ড়’লো “খেলা হবে” চাল, নিমিষে ভাইরাল চা’লে’র ব’স্তা

একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগে তৃণমূলের তরফ থেকে খেলা হবে স্লোগান জনপ্রিয় হয়ে উঠেছিল। সেই খেলা ইতিমধ্যেই সাঙ্গ হয়েছে। বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে রাজ্যের মসনদে বসেছে রাজ্যের শাসক দল। তৃতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এতে কার্যত মমতার অনুরাগীরা বেশ খুশি। একুশের নির্বাচনের সময় যে স্লোগান উঠেছিল, সেই স্লোগানের জনপ্রিয়তা কার্যত এখনো এতোটুকু মলিন হয়নি।

বর্ধমান জেলাকে পশ্চিমবঙ্গের ধানের ভান্ডার বলা হয়। এই জেলায় উৎপাদিত ধান এবং তার থেকে উৎপাদিত চালের চাহিদা প্রচুর। রাজ্যের গণ্ডি পেরিয়ে ভিন রাজ্যেও পৌঁছে যায় বর্ধমানের চাল। আর এবার পশ্চিমবঙ্গ থেকে “খেলা হবে” চাল পৌঁছে যাবে ভিন রাজ্যে। পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন ব্র্যান্ডের অথবা কোম্পানির চাল বিক্রি হয়। তবে বর্ধমানের চাল ব্যবসায়ী অরিন্দম কুন্ডু “খেলা হবে” চাল বিক্রি করছেন সারা রাজ্য জুড়ে।

বর্ধমানের চাল ব্যবসায়ী অরিন্দম কুন্ডু ও তাঁর স্ত্রী তনয়ার স্পষ্ট দাবি, তারা দিদির অনুরাগী। তৃণমূল কংগ্রেস দলটিকে সমর্থন করেন তারা। একুশের বিধানসভা নির্বাচনে ভাঙ্গা পা নিয়েই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যেভাবে খেলা দেখিয়েছেন তার থেকে অনুপ্রেরণা পেয়েই কার্যত এমন উদ্যোগের পরিকল্পনা নেন তারা। তারা জানাচ্ছেন এই ব্যবসায় প্রতিকুলতা প্রচুর। তবে খেলা হবে স্লোগানকে সামনে রেখেই তারা এই খেলায় জয়ী হতে চান।

বর্ধমান জেলাতে তো বটেই, রাজ্য জুড়ে বিভিন্ন প্রান্তেই তাদের কোম্পানির চালের চাহিদা বাড়ছে। ভবিষ্যতে উত্তরপ্রদেশসহ দেশের অন্যান্য রাজ্যেও খেলা হবে চাল বিক্রি করার পরিকল্পনা রয়েছে তাদের।