পলাতক প্রাক্তন পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ, দেশে ফেরাতে বড় পদক্ষেপ ইমরান সরকারের

পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ বর্তমানে পাকিস্তান থেকে পালিয়ে ব্রিটেনে আশ্রয় নিয়েছেন। উল্লেখ্য, প্রাক্তন পাক প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে পাকিস্তানের আদালতে একাধিক ক্ষেত্রে দুর্নীতির মামলা দায়ের করা রয়েছে। নওয়াজ শরিফকে দেশে ফেরাতে মরিয়া বর্তমান পাক প্রশাসন। সম্প্রতি, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান শাসকদল তেহরিক-ই-ইনসাফের লিগাল সেলকে নওয়াজ শরিফকে দেশে ফেরানোর ব্যবস্থা করার নির্দেশ দিলেন।

শুক্রবার, পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম “ডন” এর তরফ থেকে প্রকাশিত রিপোর্টে জানা গেল, নওয়াজ শরিফকে দেশে ফেরানোর ব্যর্থতার দায় পুরোপুরি ইমরান খানের সরকারের উপর চাপিয়ে দিয়েছে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি। এদিকে ব্রিটেনের সঙ্গে পাকিস্তানের কূটনৈতিক সম্পর্ক অত্যন্ত দুর্বল। তাই আইনি সহায়তা ছাড়া নওয়াজ শরিফকে দেশে ফেরানোর ব্যবস্থা করতে পারবে না পাক প্রশাসন, এমনটাই দাবি করছে সংবাদ মাধ্যম।

উল্লেখ্য, পাকিস্তান মুসলিম লিগের নেতা নওয়াজ শরীফ সহ একাধিক নেতার বিরুদ্ধে পাকিস্তানি আদালতে দুর্নীতির মামলা দায়ের হয়েছে। এদিকে চিকিৎসার প্রয়োজনে বিদেশ যাত্রার জন্য এক মাসের ছুটি নিয়ে গত বছরের নভেম্বর মাস থেকেই ব্রিটেনে আশ্রয় নিয়েছেন নওয়াজ শরীফ। বিদেশের মাটিতে বসেই বর্তমান পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী এবং পাক সেনার বিরুদ্ধে একের পর এক অভিযোগ এনে দেশের মাটিতে উত্তেজনা সৃষ্টির চেষ্টা করছেন নওয়াজ, এমনটাই অভিযোগ ইমরান খানের।

সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, নওয়াজ শরিফকে দেশে ফেরানোর জন্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি, আসাদ উমর, ফওয়াদ চৌধুরি, শফকত মাহমুদ এবং পারভেজ খাট্টাককে নিয়ে বিশেষ এক কমিটি গঠন করেছে ইমরান খানের সরকার। ইতিমধ্যেই এই কমিটির সঙ্গে জরুরি বৈঠক সেরেছেন পাক প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রীর অভ্যন্তরীণ উপদেষ্টা শাহজাদ আকবর জানালেন, নওয়াজ শরিফকে দেশে ফেরানোর আর্জি জানিয়ে ইতিমধ্যেই পাক-প্রধানমন্ত্রী তরফ থেকে ব্রিটিশ সরকারের কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীকে দেশে ফেরানোর সবরকম চেষ্টা চালাচ্ছে পাক সরকার।