১২ ঘন্টার বনধকে ঘিরে বিজেপি-তৃণমূল সংঘর্ষে ধুন্ধুমার তুফানগঞ্জ, আহত ৪ বিজেপি সমর্থক

কোচবিহার: বিজেপির ডাকা ১২ ঘণ্টার বনধকে ঘিরে উত্তেজনার সৃষ্টি হল তুফানগঞ্জের জোড়াই মোড় এলাকায়। আজ সকালে ওই বনধ ব্যর্থ করতে তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী সমর্থকরা মিছিল বের করলে ওই উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। দুই পক্ষের মধ্যে চলতে ইট বৃষ্টি। পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশকে লাঠি চার্জ করতে হয় বলে জানা গিয়েছে। ওই ঘটনায় বিজেপির স্থানীয় মণ্ডল কমিটির এক নেতা সহ ৪ জন কর্মী সমর্থক আহত হয়েছে।

আহতদের মধ্যে দুজনকে তুফাঙ্গঞ্জ মহকুমা হাসপাতালে অ দুজনকে বক্সিরহাট ব্লক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে দুই পক্ষের বেশ কয়েকজনকে আটক করেছে। এছাড়াও ধলপল, চিলাখানা, মারুগঞ্জ ও ছাট রামপুর এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে বলে জানা গিয়েছে। সর্বত্র পরিস্থিতি সামাল দিতে বিশাল পুলিশ বাহিনি নামানো হয়েছে। কোথাও কোথাও বনধ সমর্থকদের সাথে পুলিশের বাগবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়তে দেখা যায়।

উল্লেখ্য, গতকাল সকালে তুফানগঞ্জের শিকারপুর এলাকায় বিজেপির বুথ সভাপতি কালাচাঁদ কর্মকার খুন হন! বিজেপির অভিযোগ, তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীরা তাকে পিটিয়ে খুন করেছে। ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে গতকাল দিনভর উত্তপ্ত ছিল তুফানগঞ্জের বিভিন্ন এলাকা। ৩১ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায় বিজেপি কর্মীরা। যদিও কোচবিহারের পুলিশ সুপার গতকালই সাংবাদিক সম্মেলন করে জানিয়ে দেন দুই পূজা কমিটির গন্ডোগোলের মধ্যে পড়ে নিগৃহীত হয়ে মৃত্যু হয় ওই বিজেপি কর্মীর। যদিও ওই ঘটনায় পুলিশ ইতিমধ্যেই একজন কে গ্রেপ্তার করেছে।