খড়িবাড়িতে আদিবাসী নাবালিকাকে ধ’র্ষ’ণের অভিযোগ যুব তৃণমূলের প্রাক্তন অঞ্চল সভাপতির বিরুদ্ধে

শিলিগুড়ি মহকুমা পরিষদের অন্তর্গত খড়িবাড়ির বুরাগঞ্জ গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় আদিবাসী নাবালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠল যুব তৃণমূল কংগ্রেসের প্রাক্তন অঞ্চল সভাপতির বিরুদ্ধে। এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়াল। অভিযুক্তের নাম উজ্জ্বল সরকার। সে বাতাসির পূর্ব বদরাজোত এলাকার বাসিন্দা। অভিযোগ যে ওই নাবালিকার বাড়ির লোকজন যখন কেউ ছিল না সেই সুযোগে অভিযুক্ত নাবালিকাকে ফুসলিয়ে চকলেট ও দশ টাকা করে দিয়ে তার পোল্টি ফার্মে নিয়ে যায় পরপর তিনদিন অপকর্ম করে। অবশেষে যন্ত্রণা সহ্য না করতে পেরে ওই নাবালিকা তার দিদিমাকে প্রথমে ঘটনাটি বলে।

এরপরেই পরিবারের লোকজন গোটা বিষয়টি জানতে পারে। এমনকি বিষয়টি কাউকে জানালে বাড়ির সদস্যদের প্রাণে মারার হুমকি দেয় অভিযুক্ত উজ্জ্বল সরকার।নির্যাতিতার বাবা তৃণমূলেরই সমার্থক। সে বিষয়টি স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বকে জানায়। বিষয়টি মিটিয়ে নিতে বাড়িতে নেতাদের নিয়ে একটি বৈঠকও হয়। কিন্তু এলাকার বিজেপি নেতারা বিষয়টি জানতে পারে। এরপর বিজেপির মহিলা মোর্চার প্রতিনিধিরা নাবালিকা ও তার পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলে আইনি সহায়তার আশ্বাস দেয়। অবশেষে রবিবার সন্ধ্যায় খড়িবাড়ি থানায় পরিবারের তরফ থেকে অভিযোগ জমা পরে। এবং অভিযোগের ভিত্তিতে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রাক্তন অঞ্চল সভাপতি উজ্জ্বল সরকারকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এদিন ধৃতকে শিলিগুড়ি মহকুমা আদালতে তোলায় হয়।অপরদিকে এদিন ওই নাবালিকার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করলেন বিজেপির নেতা কর্মীরা। এবং সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বিজেপির শিলিগুড়ি সাংগঠনিক জেলার যুব মোর্চার সভাপতি কাঞ্চন দেবনাথ বলেন যে ঘটনাটি ঘটেছে তার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। আর আদিবাসী নাবালিকা পরিবারের আইনী সহায়তা করার জন্য পাশে আছি। এবং দোষীর কঠোর থেকে কঠোর শাস্তি দাবি জানাচ্ছি। এই বিষয়ে স্থানীয়রা জানিয়েছেন যে অভিযুক্ত ব্যক্তি এর আগেও এই রকম ঘটনা ঘটিয়েছে। তাই আমরা ওই ব্যক্তির কঠোর শাস্তির দাবি করছি।