বাড়িতে আটকে মেয়ের উপর পাশবিক নির্যাতন চালাতো প্রাক্তণ কংগ্রেস মন্ত্রী, উদ্ধারে মহিলা কমিশন

দিল্লির প্রাক্তন মন্ত্রী তথা কংগ্রেস নেতা রাজকুমার চৌহানের বিরুদ্ধে নারী নির্যাতনের গুরুতর অভিযোগ উঠলো। অভিযোগ তুললেন তার নিজের মেয়েই। কংগ্রেস নেতার মেয়ের তরফ থেকে চিঠি পেয়ে মহিলা কমিশনের তরফ থেকে অবশ্য দ্রুত ওই মহিলা এবং তার নাবালিকা কন্যাকে উদ্ধার করে নিয়ে আসা হয়েছে। তবে দিল্লি পুলিশ অবশ্য এখনো এই নিয়ে কংগ্রেস নেতার বিরুদ্ধে কোনো মামলা দায়ের করেনি।

কংগ্রেসের প্রাক্তন মন্ত্রী এবং তার ছেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই মহিলা। তার অভিযোগ দীর্ঘদিন ধরেই তাকে বাড়িতে বন্দি করে রেখে তার ওপর নির্যাতন চালিয়েছেন তার বাবা এবং ভাই। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে তাকে মারধোর করার অভিযোগও করেছেন তিনি। দীর্ঘদিন অত্যাচার সহ্য করার পর মহিলা কমিশনকে নিজের দুর্দশা জানিয়ে একটি চিঠি লেখেন ওই মহিলা।

তিনি জানিয়েছেন, বিগত প্রায় দশ বছর ধরে তিনি তার বাবার বাড়িতেই রয়েছেন। স্বামীর সঙ্গে বিবাহ-বিচ্ছেদের মামলা চলছে তার। তার স্বামী অবশ্য এতদিনে অন্যত্র বিবাহ করে সুখী জীবন নির্বাহ করছেন। কিন্তু কংগ্রেস নেতা নাকি ইচ্ছাকৃতভাবেই ডিভোর্সের মামলা শেষ করতে চাইছেন না। কারণ এতে নাকি তার “সন্মান হানি” হবে। এদিকে তার মেয়ে কিন্তু এমন একটি অস্বাভাবিক সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে এসে নতুনভাবে জীবন নির্বাহ করতে চান। কিন্তু তার পরিবার সেই দাবি মেনে নিতে রাজি নয় বলেই দাবি করছেন মহিলা।

তার কাছ থেকে এমন গুরুতর অভিযোগ পেয়ে মহিলা কমিশনের সদস্যরা দিল্লি পুলিশের একটি টিমকে সঙ্গে নিয়ে কংগ্রেস নেতার বাড়িতে চড়াও হয়ে তাকে এবং তার ১৩ বছর বয়সি নাবালিকা কন্যাকে উদ্ধার করে। বর্তমানে তারা দিল্লির একটি শেল্টার হোমেই রয়েছেন বলে জানানো হয়েছে। অভিযুক্তই কংগ্রেস নেতা অবশ্য নিজের ওপর ওঠা সমস্ত অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছেন।