দিল্লি পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হবে বিদেশি তবলিঘি জামাতের সদস্যদের: স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক

দিল্লির নিজামুদ্দিনের ঘটনা নিয়ে নতুন করে বলার কিছুই নেই। সবাই আমরা সেই সম্পর্কে অবগত। এবার কেন্দীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক জানিয়ে দিল যারা বিদেশ থেকে এসে নিজামুদ্দিনের জমায়েত যোগ দিয়েছিল তাদের এবার দিল্লি পুলিশের হেফাজতে নিতে। আসলে তারা পর্যটক ভিসায় ভারতে এসেছিল, কিন্তু লক ডাউনের কারণে তারা দেশেই আটকে যায়, পরে তারা নিজামুদ্দিন মারকাজে এতো দিন থাকে। এদিকে দেশের তবলিঘি জামাতের সদস্যদের ইতিমধ্যেই কালো তালিকাভুক্ত করা হয়েছে।

এখনও পর্যন্ত ৫৬৭ জন জামাত সদস্য সুস্থ হয়ে ঊঠেছেন আর তার পরেই তাদের নেওয়া হয়েছে দিল্লি পুলিশের হেফাজতে।আর জানা গেছে এরা সবাই বিদেশী। দিল্লি ডিভিশনাল কমিশনারের তরফ থেকে নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে। তাদের পরীক্ষা করে দেখা হয়েছে তাদের শরীর কেমন আছে। করোনা নেগেটিভ পাওয়ার পরেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক জানিয়েছে তাদের দিল্লি পুলিশের হেফাজতে নিতে হবে।

এই দিল্লির নিজামুদ্দিনের ঘটনা ঘটেছিল মার্চ মাসের ১৫ তারিখে। আর তার পর থেকেই দেশের বিভিন্ন জায়গায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছিল লাফিয়ে লাফিয়ে , স্বাস্থ্যমন্ত্রক সুট্রে এই কথাই বলা হয়েছিল। আর সেই জমায়েতে ছিল অনেক কয়েকজন বিদেশী। তাদেরই রাখা হয়েছিল কোয়ারেন্টাইনে। কিন্তু তাদের শরীরে আপাতত পাওয়া যায় নি করোনা। কিন্তু এর আগে অনেক জামাত সদস্যের শরীরে পাওয়া গেছে এই ভাইরাস।

তবলিঘি জামাতের সদস্যদের দ্বারা এখন জানা গেছে , যে দেশের মধ্যে কতজন তাদের সদস্য চিকিতসাধীন রয়েছে আর কত জন কোয়ারেন্টাইনে আছেন। মোট ২ হাজার ৪৪৬ জন রয়েছে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে।কিন্তু সেখানে যাদের করোনা নেগেটিভ তাদের এবার ছেড়ে দেওয়া যেতেই পারে। কিন্তু তাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বাড়ি যাওয়ার পরে যেনো তারা আর বাড়ির থেকে না বের হয়।।