কোন ঘটনার জন্য ছাড়লেন মন্ত্রিত্ব? সর্বসমক্ষে ফাঁস করলেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, জেনে নিন

একুশের নির্বাচনী আবহে তৃণমূল দলের বিরুদ্ধে দলীয় কর্মীদের ক্ষোভ যেন মাত্রা ছাড়াচ্ছে। নিত্যদিনই কোনো না কোনো তৃণমূলীয় বিধায়ক, সাংসদ, নেতাকর্মী ঘাসফুল ছেড়ে পদ্মফুলের আশ্রয় গ্রহণ করছেন। আজ রাজ্যের বনদফতরের ক্যাবিনেট মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূল দলের মন্ত্রীত্ব পদ ত্যাগ করেছেন। মুখ্যমন্ত্রীর পাশাপাশি তিনি আজ রাজ্যপালের কাছেও তার ইস্তফা পত্র জমা দিয়েছেন।

তবে আজ ইস্তফা পত্র জমা দিতে গিয়ে রীতিমতো তার চোখে জল দেখা গেল। এতদিন নিষ্ঠাভরে নিজের দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। আজ সেই দায়ভার থেকে মুক্তি গ্রহণ করে সর্বসমক্ষে কেঁদে ভাসালেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন তিনি জানিয়েছেন, তার এই পদত্যাগের সিদ্ধান্ত বহু পুরনো। আজ থেকে প্রায় আড়াই বছর আগেই তিনি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। এতদিনে তা কার্যকর করলেন।

তিনি জানিয়েছেন, আড়াই বছর আগে রাজ্য মন্ত্রিসভায় ব্যাপক রদবদল ঘটানো হয়। ২০১৮ সালের ৭ই জুন তিনি জানতে পারেন রাজ্যের সেচ দপ্তরের মন্ত্রী পদ থেকে তাকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। তিনি এমনটা ঘুণাক্ষরেও আশা করেননি। যে সময় এই খবরটি তিনি জানতে পারেন সেই সময় তিনি কলকাতায় তৃণমূল ভবনে ছিলেন। সংবাদমাধ্যম মারফত তিনি জানতে পারেন তাকে সেচ দপ্তর থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

আজ ইস্তফা দেওয়ার পর সংবাদমাধ্যমের কাছে তিনি জানিয়েছেন, আড়াই বছর আগে সেদিন তিনি বেশ অপমানিত বোধ করেছিলেন। তৃণমূল ভবনে বসেই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছিলেন, তিনি মন্ত্রীত্ব ছেড়ে দেবেন। মন্ত্রী পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার পর রাজ্যবাসীর কাছে তার অনুরোধ, “আমাকে ভুল বুঝবেন না। আমি আঘাত নিতে পারছিলাম না!”। তিনি এও বলেছেন, অত্যন্ত আহত হয়েই মন্ত্রিসভা ত্যাগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।