৬৫ বার ফুলশয্যা! এরপরেই উ’ধা’ও, রে’ক’র্ড করলেন মহিলা

একবার দুবার নয়, ৬৫টি বার বিয়ে করেছেন উত্তরাঞ্চলের একজন মহিলা! শুনতে অবাক লাগলেও এমনটাই সত্যি। এই মহিলার বিবাহের কারণ শুনলে চমকে যাবেন আপনি। সংসার করার দায়ে নয়, এই মহিলা আসলে বিয়ে করতেন বিয়ের পর যে গয়না, টাকা-কড়ি, উপহার পাওয়া যায় তা হাতানোর জন্য! এই লোভের বশে জীবনে ৬৫ বার বিয়ে করতেও দ্বিধা করেননি তিনি। প্রয়োজনে আরো করতেই পারেন!

উত্তরাঞ্চলের বাসিন্দা ওই মহিলার আসলে পেশা হয়ে দাঁড়িয়েছে এই কর্মকাণ্ড। তার এই কর্মকাণ্ডে বহু সঙ্গীসাথীও রয়েছে তাকে মদত দেওয়ার জন্য। প্রতিবার বিয়ের পর ফুলশয্যার রাতেই সকলে যখন নিশ্চিন্তে ঘুমিয়ে থাকতেন, তখন শ্বশুরবাড়ি থেকে চম্পট দিতেন ওই মহিলা। সঙ্গে নিয়ে যেতেন সমস্ত গয়না-গাটি, টাকা-কড়ি এবং উপহার।

সম্প্রতি ধনৌরির বাসিন্দা এক যুবককে বিয়ে করেছিলেন ওই মহিলা। তাকেও ওই একই ভাবে প্রতারিত করেন তিনি। ওই যুবক জানাচ্ছেন, কনেপক্ষের তরফ থেকে জানানো হয়েছিল যে তাদের পরিবারের অবস্থা খুব খারাপ। বিয়ের জোগাড়-যন্ত্র করতে তাই বরপক্ষের থেকে ৫০ হাজার টাকা বিয়ের আগেই নিয়ে নেওয়া হয়েছিল। এরপর ফুলশয্যার পরের দিন সকালে উঠেই মাথায় হাত বরপক্ষের। বউ এবং অর্থ-সম্পত্তি, দুটোই হাওয়া।

ওই মহিলার বাপের বাড়ির সদস্য হিসেবে যাদের পরিচয় দেওয়া হয়েছিল, পরে জানা যায় সেই সম্পর্কগুলিও ভুয়ো। ধনৌরির ওই যুবককে প্রতারিত করে রাজস্থানে পালিয়ে যায় ওই মহিলা। সেখানেও আবার বিয়ে করেন তিনি। ওই মহিলাকে গ্রেফতার করার জন্য আপাতত পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন ধনৌরির যুবকের পরিবারের সদস্যরা।