বাঘকে গুলি করে হত্যা, পাঁচ জন চোরাশিকারি গ্রেফতার

কিছুদিন আগে কর্নাটকের নাগারহোলের জঙ্গলে পাঁচজন চোরাশিকারি রাতের অন্ধকারে নৃশংসভাবে একটি বাঘকে গুলি করে হত্যা করে তার থাবা এবং দাঁত উপরে নেয়। ঘটনার ঠিক ১০ দিনের মধ্যেই ওই পাঁচ জন চোরাশিকারিকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হলো কর্নাটকের বনদপ্তর। নেপথ্যে রয়েছে, কর্ণাটক বড় দপ্তরের স্নিফার ডগ রানা। রানার সহায়তায় পাঁচ চোরাশিকারি কাছে পৌঁছাতে সক্ষম হয়েছেন বনকর্মীরা।

কর্নাটকের বন দপ্তর সূত্রে খবর, দশ দিন আগে নাগারহোলের জঙ্গলে একটি বাঘ কে গুলি করে হত্যা করে চোরাশিকারিরা। তারপর বাঘটির মৃতদেহ ছিন্নভিন্ন করে তার থাবা এবং তার উপরে নেয় তারা। মূলত বাঘের দেহাংশ পাচার করার উদ্দেশ্যেই এই নৃশংস হত্যা। এরপর বনদপ্তরের তরফ থেকে তদন্তে নামেন বনকর্মীরা। সঙ্গে ছিল রানা। রানাকে অনুসরণ করেই অপরাধীদের কাছে পৌঁছাতে সক্ষম হন বনকর্মীরা।

বনকর্মীদের এই সফলতার ভূয়সী প্রশংসা করেছেন কর্নাটকের বনমন্ত্রী আনন্দ সিং। এক টুইট বার্তায় তিনি জানিয়েছেন, কর্ণাটক সরকার বন্যপ্রাণীর চোরাশিকার রুখতে বদ্ধপরিকর। চোরা শিকারিদের প্রতি বনকর্মীদের এই সফল পদক্ষেপ কার্যত অপরাধীদের কাছে একটি সতর্কবার্তা হয়ে থাকল। পাশাপাশি তিনি আরো বলেছেন, সরকারের লক্ষ্য বন্য প্রাণীর সাথে মানুষের সংঘর্ষ এড়ানো। বন্য পশুর সংখ্যা বৃদ্ধি করে ভবিষ্যতে মানুষ ও বন্যপ্রাণীর সুস্থ সহাবস্থান গড়ে তোলার লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে এগোচ্ছে সরকার।

এই মুহূর্তে দেশের সবথেকে বেশি ভাগ রয়েছে কর্ণাটক এবং মধ্যপ্রদেশে। গতবছরের তুলনায় বাঘের সংখ্যা ৮টি বৃদ্ধি পাওয়ায় এবছর সুন্দরবনের বাঘের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯৬টিতে। বাঘের সংখ্যা বৃদ্ধির নিরিখে যা রেকর্ড। ২০১৮ সালের বাঘ শুমারি অনুযায়ী, বিশ্বের মোট ৭৫ শতাংশ বাঘ ভারতেই রয়েছে। তবে এই মুহূর্তে বক্সাসহ ভারতের উত্তর-পূর্ব রাজ্যগুলির তিনটি ব্যাঘ্র প্রকল্পে একটিও বাঘ নেই। তবে সরিস্কা-পান্নার পথে এই ব্যাঘ্র প্রকল্পে বাঘ নিয়ে আসার পরিকল্পনা চলছে।

সব খবর সরাসরি পড়তে আমাদের WhatsApp  Telegram  Facebook Group যুক্ত হতে ক্লিক করুন