হাতির হানায় মৃত্যুতে আর্থিক সাহায্য এবং পরিবারের সদস্যকে চাকরি, ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

মঙ্গলবার পশ্চিম মেদিনীপুরের প্রশাসনিক বৈঠকে যোগদান করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানালেন, ঝাড়গ্রাম এবং পশ্চিম মেদিনীপুরে যে বা যারা হাতির আক্রমনের মুখে পড়ে প্রাণ হারিয়েছেন, তাদের প্রত্যেকের পরিবারকে আর্থিক সাহায্য প্রদান করবে রাজ্য। পাশাপাশি, মৃতের পরিবার থেকে একজন সদস্যকে হোমগার্ড পদে চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতিও দেন মুখ্যমন্ত্রী।

এদিনের প্রশাসনিক বৈঠকের মঞ্চেই দাঁতাল হাতির আক্রমনে মৃত এক ব্যক্তির পরিবারের এক সদস্যের হাতে চাকরির নিয়োগপত্র তুলে দেন মুখ্যমন্ত্রী। উল্লেখ্য, ঝাড়গ্রাম এবং পশ্চিম মেদিনীপুরের বিভিন্ন এলাকায় প্রায়শই দাঁতাল হাতির আক্রমণে ক্ষতিগ্রস্ত হন এলাকাবাসী। জঙ্গল ছেড়ে প্রায়শই লোকালয়ে ঢুকে পড়ে হাতির দল। মুহূর্তের মধ্যেই বাজার-ঘাট, ক্ষেত-খামার তছনছ করে দেয়। এমনকি এলাকাবাসীর বাড়িতেও হামলা চালায়।

কখনো কখনো দীর্ঘক্ষন সড়ক আটকে রাখে দাঁতাল হাতির দল। কোনো ক্রমে যদি কেউ দাঁতাল হাতির সামনে এসে পড়ে, তাহলেই আর রক্ষা নেই। হাতির আক্রমণে এই সমস্ত এলাকায় প্রায়শই কেউ না কেউ মারা যাচ্ছেন। এমতাবস্থায়,এলাকাবাসীর পাশে দাঁড়াতে নতুন পদক্ষেপ গ্রহণ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুধু তাই নয়, ওই দুই জেলায় বিগত দিনে মাওবাদী হামলা যদি কেউ মারা গিয়ে থাকেন, অথবা বিগত দশ বছর ধরে নিখোঁজ থাকেন, তাদের পরিবারের একজন সদস্যকে চাকরি অথবা চার লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন মুখ্যমন্ত্রী।