বিখ্যাত মহিলা টেনিস তারকা, একদা পর্ণস্টারের প্রেমে পড়ে যা হাল হয়েছে তার, জানুন জীবনকাহিনী

অনেক সময় মানুষের জীবনে এমন অনেক পরিস্থিতি আসে, যখন মানুষ সাধারণ বুদ্ধি প্রয়োগ না করে এমন কিছু সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলে, যার জন্য হয়তো সারা জীবন তাকে সেই ভুল সিদ্ধান্তের ফল ভুগতে হয়। এমন অনেক ভুল সিদ্ধান্তের উদাহরণ আমরা আগেও পেয়েছি।প্রত্যেক মানুষই নিজের জীবনে কোনো না কোনো সময় এইরকম ভুল করে থাকে। সুশান্তের ঘটনাটি তার প্রত্যক্ষ উদাহরণ। এমনই একজন সেলিব্রিটি আছেন যিনি যখন তার ক্যারিয়ারের উচ্চতায় পৌঁছে ছিলেন, তখন এমন একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন যা তার ক্যারিয়ার এবং ব্যক্তিগত জীবনকে পুরোপুরিভাবে শেষ করে দেয়। আজ প্রতিভা থাকা সত্ত্বেও তিনি তার নাম প্রকাশ না করে জীবন যাপন করেন। আমেরিকার বিখ্যাত প্রাক্তন টেনিস খেলোয়াড় এর নাম জেনিফার কেপ্রিয়তি।

একসময় আমেরিকার টেনিসটার ছিলেন জেনিফার। তিনটি গ্র্যান্ড স্ল্যাম যে তার পাশাপাশি অলিম্পিকে সোনার পদক জিতে ছিলেন তিনি।গ্র্যান্ড স্লাম এর মধ্যে দুটি অস্ট্রেলিয়ান ওপেন এবং একটি ফরাসি ওপেন জিতে ছিলেন এই বিখ্যাত টেনিস তারকা।তার ঝুলিতে রয়েছে মোট ১৪ টি ডব্লিউ টি এ টাইটেল। ২০০১ সালে তিনি বিশ্বের নাম্বার ওয়ান টেনিস প্লেয়ারের শিরোপা জিতেছিলেন। ক্যারিয়ারের শীর্ষে যখন তার থেকে দেশ আরো অনেক কিছু পাবার আশা করছিল, ঠিক তখনই নিজের জীবনের সবথেকে বড় ভুল সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন তিনি। পনস্টার ডেল ডাবরনের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়লেন তিনি।
এই বিখ্যাত পর্নস্টারের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ার পর থেকেই জেনিফারের ক্যারিয়ারের অবরোধ শুরু হয়ে যায়।

প্রেমের দিকে বেশি মনযোগ করার ফলে স্বাভাবিকভাবেই খেলার প্রতি মনঃসংযোগ তার নষ্ট হয়ে যায়। তারা নিয়মিত অনুশীলনের ফলে একাধিক ম্যাচে তিনি হারতে থাকেন।এইভাবে ক্যারিয়ারের তুঙ্গে থাকা জেনিফারের তার ব্যক্তিগত সম্পর্কেও অবনতি হতে শুরু করে দেয়।ক্যারিয়ারে অবনতির জন্যই হয়তো তোমার সঙ্গে ব্রেকআপ হয়ে যায় জেনিফারের। একইসঙ্গে কেরিয়ার এবং ব্যক্তিগত সম্পর্কে হেরে যাবার পর মাদক আসক্ত হয়ে পড়েন এই টেনিস তারকা।তারপর অনেক চেষ্টা করেও আর কোন কিছু স্বাভাবিক করতে পারেননি তিনি। নেশা করতে করতে প্রক্রিয়াটা তিনি নষ্ট করে ফেলেন।

তার জীবনে সবথেকে কাছের মানুষ বাবার মৃত্যুর পর একেবারেই একলা হয়ে যান জেনিফার।বাবার মৃত্যুর পর তিনি আর কখনোই ঘুরে দাঁড়াতে পারেননি। বর্তমানে একটি দ্বীপে একলা থাকেন তিনি। সেখানে অনেক সেলিব্রিটি থাকলেও কারো সঙ্গে যোগাযোগ করেন না তিনি। শুধুমাত্র একটি ভুল সিদ্ধান্ত কিভাবে গোটা জীবনটা নষ্ট করে দিতে পারে তার প্রকৃষ্ট উদাহরণ জেনিফার। প্রত্যেক মানুষের উচিত জেনিফারের পরিণতি দেখে নিজের জীবনের শিক্ষা নেওয়া।

সব খবর সরাসরি পড়তে আমাদের WhatsApp  Telegram  Facebook Group যুক্ত হতে ক্লিক করুন