জ্বালানির দা’মে পতন আন্তর্জাতিক বাজারে, আজ কলকাতায় দা’ম কতো

ফের বিশ্বের বাজারে সস্তা হয়ে গেল অশোধিত তেল। চলতি সপ্তাহে পরপর উর্ধ্বমুখী হওয়ার পর আরো একবার কিছুটা দাম কমে গেছে এই তেলের। দেশের বাজারে গতকাল ক্রুডয়েলের দাম প্রতি ব্যারোলে বিক্রি হয়েছে নিরানব্বই ডলারে। এদিন এক ডলার কমে গিয়ে সেই দাম এসে থেকেছে ৯৮ ডলারে।

বিশেষজ্ঞ জানিয়েছেন, আপাতত এক সপ্তাহ অসহিত তেল 100 ডলার প্রতি ব্যারেল হলেও এখনো কমেনি জ্বালানির দাম। দেশে জ্বালানি দামের সঙ্গে বিশ্ববাজারে তেলের দামের ওঠানামার সরাসরি সম্পর্ক রয়েছে। এর মূল কারণ হলো ভারত জ্বালানির ব্যাপারে পুরোপুরি আমদানি নির্ভর হয়ে রয়েছে।

আর এই কারণে আমদানি খরচ বাড়লে দেশে বেশি দামে জ্বালানি কিনতে হয় আমজনতা কে। এবার দেখে নেওয়া যাক দেশে, পেট্রোল এবং ডিজেলের দাম কত।

আরো পড়ুন: পুরীর জগন্নাথ মন্দিরের রত্ন’ভা’ন্ডা’রে কি কি রয়েছে? শতাব্দী প্রাচীন তালিকায় কি কি নথিভুক্ত হয়েছিল?

তিলোত্তমা নগরীতে জ্বালানির দাম এখন বেশ চড়া। কলকাতায় প্রতি লিটার পেট্রোলের দাম এখন ১০৬.০৩ টাকা। লিটার প্রতি ডিজেলের দাম ৯২.৭৬ টাকা।

রাজধানী শহরে জ্বালানির দাম কিছুটা এখন কম। এই শহরে লিটার প্রতি পেট্রোলের দাম রয়েছে ৯৬.৭২ টাকা। লিটার প্রতি ডিজেলের দর ৮৯.৬২ টাকা। দেশে চার মহানগরীর মধ্যে একমাত্র দিল্লিতে জ্বালানির দাম সবথেকে কম।

দেশের বাণিজ্য নগরী মুম্বাইতে লিটার প্রতি পেট্রোলের দাম ১০৬.৩১ টাকা। লিটার প্রতি ডিজেলের দাম ৯৪.২৭ টাকা। সম্প্রতি মহারাষ্ট্র সরকার দামের উপর ভ্যাট ছাড় দিতে কমে গেছে অনেকটা জ্বালানির দাম। যদিও মুম্বাইতে জ্বালানির দাম চার মহানগরী থেকে সবথেকে বেশি।

দেশে দক্ষিণের শহর চেন্নাই তে জ্বালানির দাম অনেকটাই বেশি। এই শহরে এক লিটার পেট্রোলের দাম ১০২ দশমিক ৬৩ টাকা। ডিজেল এক লিটারের দাম ৯২.৭৬ টাকা। গত ৮৯ দিনে এই শহরে জ্বালানির দামে কোন পরিবর্তন আসেনি।