Facekook-কে চূড়ান্ত সমন পাঠালো দিল্লি বিধানসভার স্থায়ী কমিটি

দীর্ঘদিন ধরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় বিশেষ করে ফেসবুকে বিদ্বেষ মূলক পোস্ট হয়ে আসছে। এই পোস্টগুলির সমাজে রীতিমতো অশান্তি সৃষ্টি করে। এই পোস্ট গুলি রুখতে ফেসবুক কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয় না, এই অভিযোগ তুলে সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে ফেসবুক ইন্ডিয়াকে নতুন করে চূড়ান্ত সমন পাঠালো দিল্লি বিধানসভার স্থায়ী কমিটি।

দিল্লি বিধানসভার স্থায়ী কমিটির তরফ থেকে ফেসবুক ইন্ডিয়ার ভাইস-প্রেসিডেন্ট এবং এমডি অজিত মোহনকে হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। উল্লেখ্য, এই একই অভিযোগ তুলে গত ১৫ই সেপ্টেম্বর ফেসবুক ইন্ডিয়া কর্তৃপক্ষকে কমিটির কাছে হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ পাঠানো হয়। তবে তারা সেবার কমিটির কাছে উপস্থিত হননি। তার বদলে ফেসবুক ইন্ডিয়ার ম্যানেজিং ডিরেক্টর অজিত মোহন-সহ বাকি শীর্ষ কর্তারা কমিটির কাছে লিখিত জমা দেন।

চিঠিতে তাদের বক্তব্য ছিল, এই ইস্যু নিয়ে সংসদীয় কমিটির সাথে যোগাযোগ করেছেন তারা। ঐদিন দিল্লি বিধানসভার স্থায়ী কমিটির কাছে লিখিত দিয়ে তারা আবেদন করেন, বিধানসভা কমিটি যেন এই সমন প্রত্যাহার করে নেয়। তবে তাদের আবেদনে কর্ণপাত করেনি দিল্লি বিধানসভার স্থায়ী কমিটি। রবিবার দুপুরে দিল্লি বিধানসভার তরফ থেকে একটি নির্দেশিকা প্রকাশ করে ফেসবুক ইন্ডিয়ার কর্ণধারকে অবিলম্বে স্থায়ী কমিটির কাছে জবাবদিহির জন্য উপস্থিত থাকার নির্দেশ পাঠানো হয়েছে।

পাশাপাশি, চূড়ান্ত সমন অবহেলা করলে বিধানসভা অবমাননার দায়ে ফেসবুক ইন্ডিয়া সংস্থার উপর কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে। দিল্লি বিধানসভার শান্তি ও সম্প্রীতি কমিটিটি চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন প্রসঙ্গে দেশের উত্তেজনা লাঘবের উদ্দেশ্যে গঠন করা হয়েছিল। দিল্লির শাসক দল আপ এর বিধায়ক রাঘব ছাদা এই কমিটির প্রধান হিসেবে নিযুক্ত। তার অভিযোগ, হাজিরা এড়াতে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে তুচ্ছ কারণ সামনে আনছে ফেসবুক ইন্ডিয়া।