হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারে শিশুদের বাড়ছে চোখের সমস্যা, সমীক্ষায় উঠে এলো তথ্য

করোনার কারণে সারা বিশ্বে স্যানিটাইজারের ব্যবহার বেড়ে গিয়েছে। সংক্রমণ এড়াতে ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী বারবার হাত ধোওয়া আবশ্যক। তবে বারবার হাত ধোওয়ার বদলে আট থেকে আশি সকলেই স্যানিটাইজার ব্যবহারের উপরেই বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন। এই অতিরিক্ত স্যানিটাইজারের ব্যবহার নিয়েও সাম্প্রতিক একটি সমীক্ষার রিপোর্টে চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এলো। সমীক্ষার রিপোর্ট অনুসারে, স্যানিটাইজার ব্যবহারের ফলে শিশুদের মধ্যে চোখের সংক্রমণ জনিত রোগ বেড়ে গিয়েছে!

ফ্রেন্ডস পয়জন কন্ট্রোল সেন্টারের তরফ থেকে প্রকাশিত ওই সমীক্ষার রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে, স্যানিটাইজার ব্যবহারের ফলে ২০১৯ সালের তুলনায় ২০২০ সালে শিশুদের চোখে আঘাত জনিত রোগের সম্ভাবনা অন্তত সাতগুণ বেড়ে গিয়েছে। দূর্ঘটনাবশত শিশুরা চোখেই স্যানিটাইজার দিয়ে বসেছে, যে কারণে এমন সমস্যা দেখা দিয়েছে। ২০১৯ সালে যেখানে স্যানিটাইজারের কারণে শিশুদের চোখের সমস্যা ১.৩ শতাংশ ছিল, ২০২০ এর শেষে দেখা যাচ্ছে সেই সমস্যাটা ৯.৯ শতাংশে বেড়ে দাঁড়িয়েছে।

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে স্যানিটাইজার ব্যবহারের কারণে শিশুদের চোখের সমস্যা যেভাবে বেড়ে চলেছে তা অত্যন্ত উদ্বেগজনক। শুধু চোখ নয়, মাত্রাতিরিক্ত স্যানিটাইজার ব্যবহারের কারণে হজম পদ্ধতিতে ব্যাঘাত ঘটে। যে কারণে পেটে ব্যথা, স্থূলতা এবং অটিজমের মতো রোগ বৃদ্ধি পেতে পারে, এমনই চাঞ্চল্যকর দাবি করছেন বিশেষজ্ঞরা।

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ, করোনাকে প্রতিহত করতে যেভাবে স্যানিটাইজারের ব্যবহার বৃদ্ধি পেয়েছে, পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে স্যানিটাইজারের ব্যবহার কমিয়ে আনতে হবে। নতুবা স্বাস্থ্যের আরও ভয়াবহ ক্ষতি হয়ে যেতে পারে। স্যানিটাইজারের কুপ্রভাব থেকে শিশুদের রক্ষা করতে বর্তমান পরিস্থিতিতে শিশুদের গ্লাভস পরিয়ে রাখার পরামর্শ দিচ্ছেন শিশু বিশেষজ্ঞরা। পাশাপাশি স্যানিটাইজার ব্যবহারের আগে তার গুণগতমান সম্বন্ধে নিশ্চিত হয়ে তবেই তা ক্রয় করা উচিত, এমনটাই মত বিশেষজ্ঞদের।