‘মুখ্যমন্ত্রীর জন্য কাজ করতে পারছেন না অভিজ্ঞ পুলিশকর্তারা’, ফের খোঁচা ধনকড়ের

“রাজ্যের পুলিশকর্মীরা যথেষ্ট দক্ষ, তবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের শাসনকালে তারা যথাযথ ভাবে কাজ করতে পারছেন না!”, সম্প্রতি রাজ্য শাসকদলকে খোঁচা দিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে এমনই অভিযোগ আনলেন বাংলার রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। তার বক্তব্য, বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কার্যত রাজ্যের সমস্ত পুলিশকর্মীকে নিষ্ক্রিয় করে রেখেছেন। তৃণমূলের অনুমতি ছাড়া, এ রাজ্যের পুলিশ নিজে থেকে কোনো কাজ করতে পারে না বলেই দাবি করেছেন রাজ্যপাল।

মঙ্গলবার এ সংক্রান্ত একাধিক টুইট করে রাজ্যপাল লিখেছেন, পশ্চিমবঙ্গের পুলিশ যথেষ্ট দক্ষ এবং প্রতিভাবান। তা সত্ত্বেও পুলিশকে প্রতিনিয়ত রাজ্য সরকারের অঙ্গুলিহেলনে চলতে হয়। তাদের নিজেদেরই কোনো কাজ করার ক্ষমতা নেই। রাজ্যপালের দাবি, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শাসনকালে বাংলার পুলিশ কার্যত আতঙ্কিত। মুখ্যমন্ত্রীর বিনা অনুমতিতে নিজের মতো করে কাজ করতে পারেন না তারা। সর্বদাই আতঙ্ক গ্রাস করে থাকে তাদের।

রাজ্যপাল আরও বলেছেন, রাজ্য পুলিশের মেরুদন্ড দুর্বল করে দিয়েছে তৃণমূল সরকার।উল্লেখ্য, এর আগেও বহুবার বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে রাজ্য পুলিশের ভূমিকা সম্পর্কে সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন রাজ্যপাল। তার অভিযোগ ছিল, রাজ্য পুলিশ তৃণমূলের অঙ্গুলিহেলনে চলছে। পাশাপাশি, রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা নিয়েও উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন রাজ্যপাল। তার দাবি, রাজ্য পুলিশ বর্তমানে তৃণমূল কর্মীদের মতোই আচরণ করছে।

রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান হিসেবে শপথ গ্রহণ করার পর থেকেই, বিভিন্ন বিষয় নিয়ে রাজ্য সরকারের বিরোধিতা করেছেন রাজ্যপাল। রাজ্যের আইন শৃংখলা রক্ষার পাশাপাশি শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়েও তৃণমূল সরকারকে কটাক্ষ করেছেন তিনি। তার বক্তব্য অনুসারে, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা মুখ্যমন্ত্রী এবং শিক্ষামন্ত্রী অঙ্গুলিহেলনে চলেন। রাজ্যপালের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে তাকে “বিজেপির দালাল” হিসেবে চিহ্নিত করতেও পিছপা হননি তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে, রাজ্যপালের বর্তমান আইনশৃঙ্খলা প্রসঙ্গে অভিযোগের ভিত্তিতে তৃণমূল দলের অভ্যন্তর থেকে এখনও অবশ্য কোনো প্রতিক্রিয়া মেলেনি।