চাঞ্চল্যকর, বিয়ের কয়েক ঘন্টার মধ্যেই টাকা-গহনা সমেত ভেগে গেলো নববধূ, জেনে নিন কারণ

নতুন সংসার পাতবেন বলে নয়, বরং বিয়ের দরুণ টাকা-পয়সা, গয়নাগাঁটি নিয়ে শ্বশুরবাড়ি থেকে চম্পট দেওয়ার উদ্দেশ্য নিয়েই বিয়ের পিঁড়িতে বসলেন উত্তরপ্রদেশের শাহাজাহানপুরের এক তরুণী। এরপর উদ্দেশ্যে সিদ্ধ হতেই শ্বশুরবাড়ির লোকেদের সর্বস্বান্ত করে দিয়ে পালিয়ে গেলেন নববধূ। ঘটনা প্রসঙ্গে হতবাক পাত্রপক্ষ। ইতিমধ্যেই অবশ্য পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন তারা। উত্তর প্রদেশের পুলিশ আপাতত ওই তরুণী এবং তার সহযোগীদের হন্যে হয়ে খুঁজছে।

প্রসঙ্গত, উত্তরপ্রদেশ পুলিশ সূত্রে খবর শাহজাহানপুরের ৩৪ বছর বয়সি এক ব্যক্তি বিয়ের জন্য পাত্রী খুঁজছিলেন। সেই সময় তার বৌদিই বিয়ের জন্য ওই তরুণীর যোগাযোগ এনে দেন। ওই ব্যক্তির পরিবারের অপর দুই সদস্যও তরুনীকে চেনেন বলেই দাবি করেন। ওই তরুণীকেই স্ত্রী হিসেবে মনোনীত করেন ওই ব্যক্তি। এরপর গত শুক্রবার একটি মন্দিরে তাদের বিবাহ সম্পন্ন হয়।

পাত্রপক্ষের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, ওই তরুণীর পরিবার অত্যন্ত গরীব ছিল বলেই তাদের জানানো হয়েছিল। তাই অত্যন্ত সাধারণ ভাবেই বিবাহ অনুষ্ঠান সম্পন্ন করা হয়। বিবাহ অনুষ্ঠানের জন্য পাত্রী পক্ষকে ৩০ হাজার টাকা নগদও দেয় পাত্র পক্ষ। তবে বিবাহ অনুষ্ঠান সম্পন্ন হওয়ার ঠিক পাঁচ ঘণ্টার মধ্যেই ঘটে গেলো অঘটন। বিয়ের দরুণ গয়নাগাঁটি, টাকা-পয়সা নিয়ে শ্বশুরবাড়ি থেকে পালিয়ে যান নববধূ।

পাত্র পক্ষের তরফের যে দুই জন তরুণীকে চেনেন বলে দাবি করেছিলেন, খোঁজ মিলছে না তাদেরও। ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে শেষমেষ রবিবার পুলিশের দ্বারস্থ হন পাত্রপক্ষ। আপাতত ঘটনার তদন্ত চালাচ্ছে পুলিশ। তদন্তের সুবিধার্থে বর এবং তার বৌদির বয়ান রেকর্ড করা হয়েছে।