বয়স ৯০ পার করেছে কবেই, এখনো নিয়মিত ল্যাপটপে খবর পড়েন কেরলের এই বৃদ্ধা

বয়স যে শুধুমাত্র একটি সংখ্যা ছাড়া আর কিছুই নয়, তা বারবার প্রমাণ করে দিচ্ছেন কিছু বয়স্ক বৃদ্ধ এবং বৃদ্ধারা। কখনো আমরা সোশ্যাল মিডিয়াতে তাদের প্রাণ খুলে নাচতে দেখি কখনো বা গাইতে দেখি। তাদের প্রাণবন্ত নাচ এবং গান দেখি কখনো কখনো মনে হয় যে আমরা বড় অল্পতেই ভেঙে পরি। এমনই একটি ছবি সম্প্রতি সোশ্যাল-মিডিয়ায়-ভাইরাল হয়েছে, তারিখে আবার প্রমাণ হলো যে মন যদি সতেজ থাকে, তাহলে বয়স কখনো বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে না। কেরালার থিসূর জেলার বছর ৯০ বছরের একজন বয়স্ক বৃদ্ধ শিখছেন কিভাবে ল্যাপটপে কাজ করতে হয়। তার এই জানার ইচ্ছা দেখে রীতিমতো অভিভূত হয়ে গেছে নেট দুনিয়ার মানুষ।

সম্প্রতি মেরি ম্যাথু নামে এই বয়স্ক বৃদ্ধার নাতি অরুণ থমাস এই ছবিটি সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করেছিলেন। এই ছবি দেখে বোঝা যায় যে, কতটা আগ্রহ সহকারে এই বৃদ্ধা টেবিলের ল্যাপটপ রেখে কাজ করছেন। তিনি ল্যাপটপের খবর দেখেন।রেডিট নামে সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মে এই কথা শেয়ার করে তিনি বলেন যে,”আমার দিদার বয়স ৯০ বছর। তিনি ল্যাপটপ ব্যবহার করতে শিখছেন, তিনি প্রতিদিন কম্পিউটারে e-newspaper দেখেন। আমার মনে হয় প্রত্যেকটা মানুষের উচিত তার মত পরিবর্তনের সঙ্গে নিজেকে মানিয়ে নেওয়া”।

ছবিতে দেখা যাচ্ছে যে, একটি চেয়ারে বসে আছেন মেরি। অন্য একটি টেবিলে রাখা আছে ল্যাপটপ। তিনি ল্যাপটপে মালায়ালাম ভাষায় জনপ্রিয় দৈনিক মাতৃভূমি পড়ছেন। সম্প্রতি মহামারী দরুন তাদের বাড়িতে খবরের কাগজ নেওয়া বন্ধ হয়ে গেছে। তাই রোজকার খবরে কাগজ করার জন্য তিনি ব্যবহার করছেন ল্যাপটপ।অন্যান্য বয়স্কদের মতো নিজেকে গুটিয়ে না রেখে তিনি নাকি থেকে শিখে নিয়েছেন কিভাবে ল্যাপটপ চালাতে হয়। তাই খবরের কাগজের বদলে তিনি এখন রোজ খবরের কাগজ করছেন কম্পিউটারে।

মেরির পরিবারের তরফ থেকে জানানো হয়েছে যে, মহামারী নিয়ে সমস্ত খুঁটিনাটি খবর রাখেন মেরি। তিনি খবরের কাগজ থেকে সবটাই পড়েন।এক মাস ধরে শিক্ষা নেবার পর তিনি এখন নিজেই ল্যাপটপ চালাতে পারেন। তার পরিবারের লোকেরা তাকে একটি টেবিল দিতে চান যাতে তিনি আরো ভালো করে ল্যাপটপ চালাতে পারেন।